বুধবার ১ এপ্রিল ২০২০ ১৮ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘অনুমতি পেলেই ঢুকব পাক অধিকৃত কাশ্মীরে’ হুঁশিয়ারি ভারতীয় সেনাপ্রধানের

অনুমতি পেলেই পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে অভিযান চালাতে প্রস্তুত রয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী (Indian Army)। গতকাল বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই মন্তব্যই করলেন সদ্য সেনাপ্রধান পদে বসা মনোজ মুকুন্দ নারাভানে।

এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘জম্মু ও কাশ্মীর-সহ দেশের সব সীমান্তে প্রস্তুত রয়েছেন আমাদের জওয়ানরা। সবরকম পরিস্থিতির সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য পরিকল্পনাও নেওয়া হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি সেগুলি বাস্তবায়িত হবে। এছাড়াও যে দায়িত্ব দেওয়া হবে তা সফল করতে আমরা দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীর নিয়েও বিভিন্ন পরিকল্পনা রয়েছে ভারতীয় সেনার। অনুমতি পেলেই এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেব আমরা।’

এরপরই কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার নিয়ে পাকিস্তানের আচরণকে কটাক্ষ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের ঘটনায় হতবাক হয়ে পড়েছে পাকিস্তান। কোনওভাবে যে এই ঘটনা ঘটতে পারে তা আশা করতে পারেনি ওরা। এখন অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘন করে ভারতের বিরুদ্ধে হামলা চালিয়ে নিজেদের মান বাঁচাতে চাইছে। তবে বেশিদিন এভাবে চালিয়ে যেতে পারবে না। আশাকরি বাস্তবটা বুঝতে পারলে সংঘর্ষবিরতির পরিমাণ কমিয়ে দেবে। না হলে এর ফল ওদেরই ভুগতে হবে।’

গত মঙ্গলবার ভারতীয় সেনাপ্রধানের কুর্সিতে বসেছেন মনোজ মুকুন্দ নারাভানে। পরে তাঁর শপথ নেওয়ার যে ছবি প্রকাশ্যে আসে তাতে দেখা যায়, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে হেরে যাওয়ার পর ভারতের সঙ্গে চুক্তি সই করছে পাকিস্তানের তৎকালীন সেনাপ্রধান নিয়াজি। তখনই বোঝা গিয়েছিল যে, নিজের শপথ গ্রহণের দিনেই পাকিস্তানকে কড়া বার্তা দিতে চাইছেন ভারতের নতুন সেনাপ্রধান।

সম্ভবত বিষয়টি বুঝতে পেরে তাঁর শপথের পরেই কাশ্মীর সীমান্তে সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করে গুলিতে চালাতে থাকে পাকিস্তান। উপযুক্ত জবাব দেন ভারতীয় সেনা জওয়ানরাও। শেষ পর্যন্ত বুধবার রাতে গুলি ও মর্টার ছোঁড়া বন্ধ করে পাকিস্তান। এই বিষয় নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে নারাভানে বলেন, ‘এই ধরনের পরিস্থিতিতে সন্ত্রাসবাদের উৎসে গিয়ে হামলা চালানোর অধিকার রয়েছে ভারতের। প্রয়োজনে তাই করা হবে।’

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email