বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আজ সন্ধ্যায় মঞ্চস্থ হবে ‘গুণজান বিবির পালা’ ও ‘নিত্যপুরাণ’

বৃহস্পতিবার থেকে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে শুরু হয়েছে সৈয়দ বদরুদ্দীন হোসাইন স্মৃতি নাট্যোৎসব ও স্মারক সম্মাননা ২০১৮ উদযাপন। পদাতিক নাট্য সংসদ ৪১ বছরে পদার্পন উপলক্ষে এ আয়োজন করেছে।

এ উৎসবে আজ সন্ধ্যায় মঞ্চস্থ হবে পদাতিক নাট্য সংসদের ‘গুণজান বিবির পালা’ ও দেশ নাটকের ‘নিত্যপুরাণ’। নাটক দুটি যথাক্রমে প্রদর্শিত হবে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা ও এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে।

‘গুণজান বিবির পালা’ নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন সায়িক সিদ্দিকী। নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করবেন মমিনুল হক দীপু, মশিউর রহমান, শামছি আরা সায়েকা, জয় মন্ডল, পুষ্প, জিনিয়া আজাদ, সালমান শুভ , আবু নাসেম লিমন, মো. ইমরান খাঁন, তাসমী চৌধুরী, জিতু, শরীফুল ইসলাম, আবু সাইদ, জবা,পৃথা, শোভন, হাসিব, আকাশ, প্রিয়াঙ্কা, রোজা।

নাটকটির মঞ্চ পরিকল্পনায় রয়েছেন সঞ্জীব কুমার দে, আলোক পরিকল্পনায় অতিকুল ইসলাম জয়, পোশাক, দ্রব্য ও কোরিওগ্রাফিতে শামছি আরা সায়েকা, গীত রচনা ও সুর স্বমন্বয়ে সায়িক সিদ্দিকী, আবহ সংগীতে হামিদুর রহমান পাপ্পু, কণ্ঠ হুমায়ন আজম রেওয়াজ, মনির দেওয়ান, রাশেদ, আকাশ, বাদ্য যন্ত্রে রয়েছেন অমল, তানভীর, জামান। নাটকটির প্রযোজনা অধিকর্তা সৈয়দ ইশতিয়াক হোসাইন টিটো।

অন্যদিকে ‘নিত্যপুরাণ’ নাটকটি রচনা ও নির্দেশনায় রয়েছেন মাসুম রেজা। নাটক প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘একলব্য আখ্যান মহাভারতের একটি অতি ক্ষুদ্র অংশ। কিন্তু একলব্যের এই অতি ক্ষুদ্র মর্মগাঁথার যে অন্তর্গত সত্য ও শক্তি তা মহাভারতের ব্যাপকতাকেও যেন ছাপিয়ে যায়, এ বোধ আমার একান্ত নিজের। মহাভারত পাঠকালে একলব্যকে আমার খুব কাছের মানুষ বলে মনে হয়েছে, মনে হয়েছে এ যেন আমি, এ যেন আমরা, সাধারণ মানুষ। একলব্যকে আমার দেখতে ইচ্ছে হয়েছে অন্যভাবে, পাণ্ডব কিংবা কৌরবদের চেয়েও কুশলী বীররূপে। আমার রচনা এবং তাকে মঞ্চে নাটক হিসেবে গড়ে তোলার কাজে আমি সর্বোতভাবে সে চেষ্টাই করেছি। মহাভারতের একলব্য আখ্যানের সমান্তরালরূপে এই একলব্য আখ্যানকে দাঁড় করানোই ছিল আমার অভিপ্রায়।’