বুধবার ১৩ নভেম্বর ২০১৯ ২৯শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আটোয়ারীতে ৭ বছরে শিশু ধর্ষন ॥ ধর্ষক আটক

রীনা চৌধূরী, আটেয়ারী (পঞ্চগড়) থেকে :  পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার পল্লীতে ৭ বছরে শিশু ধর্ষনের খবর পাওয়াগেছে। শিশুটির বাবা বাদী হয়ে ১৪ মে রাতে আটোয়ারী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের সংশোধনী ২০০৩ এর ৯(১) ধারায় ধর্ষন মামলা দায়ের করেন। এই অনৈতিক ঘটনাটি গত মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার ধামোর ইউনিয়নের বন্দরপাড়া গ্রামে ঘটেছে।

এদিকে ইভটিজিং এর খবর পেয়ে আটোয়ারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন সুলতানা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রেনু একরাম সহ পুলিশকে সাথে নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে উপস্থিত হয়ে দেখেন ইভটিজিং নয় ধর্ষনের ঘটনা। ইউএনও তাৎক্ষনিক ভাবে শিশুটির সাথে সরাসরি কথা বলে চিকিৎসার জন্য ব্যবস্থা গ্রহন করেন এবং অভিযুক্তকে থানায় সোপর্দ করেন। রাতে শিশুটির বাবা বাদি হয়ে মামলা রুজু করলে পরদিন বুধবার সকালে আটককৃত ব্যাক্তি উপজেলার বলরামপুর ইউনিয়নের রাণীগঞ্জ গ্রামের জনৈক মৃত: মকসেদ আলীর পুত্র মো: খালেক (৬৩) কে পঞ্চগড় আদালতে প্রেরন করা হয়।

উল্লেখ্য, মামলার বিবরনে জানাগেছে, ভিকটিম ওই গ্রামের জনৈক দিনমজুর মো: হোসেন আলী’র মেয়ে (৭) এবং সম্পর্কে খালেক ভিকটিমের মায়ের আপন মামা শ^শুর। ধর্ষক গত মঙ্গলবার দুপুরে ভাগ্নের বাড়ীতে বেড়াতে আসলে মামার মেহমানদারী জোগাড়ে বেড়িয়ে পড়ে ভাগ্নে। ভাগ্নের অনুপস্থিতির সুযোগে বাড়িতে ৭ বছর বয়সী নাতনীকে একা পেয়ে লম্পট নানার লোলুপ দৃষ্টি পড়ে। একপর্যায় নানা ওই নাতনীকে জোড় পূর্বক ধস্তাধস্তি শুরু করলে আত্ম চিৎকার দেয়। ইতিমধ্যে প্রতিবেশীরা ছুটে আসে এবং তার মা বাড়ি ফিরে। এঅবস্থায় মেয়ের কাছে নানার কু-কর্মের কথা অকপটে বলে দেয় এই অবুঝ শিশুটি। মেয়ের কথা শুনে মা এবং প্রতিবেশী রাশেদা প্রথমে হতবাক হন। পরে তাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এলে নানাকে উত্তম-মধ্যম দিয়ে আটক করে রাখেন।

এ ব্যাপারে আটোয়ারী থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আব্দুর রাজ্জাক ধর্ষন মামলা রেকর্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, শিশুটিকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পঞ্চগড় সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে এবং আটককৃত খালেককে আদালতের মাধ্যমে জেল-হাজতে পাঠানো হয়েছে।