শনিবার ২৪ অগাস্ট ২০১৯ ৯ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘আব্বাস’ চলচ্চিত্রে নিয়ে প্রশংসা করছেন দর্শক ও হল কর্তৃপক্ষ

পুরান ঢাকার রহমান কাউন্সিলর, পুরান ঢাকায় বেড়ে ওঠা ও এলাকার ত্রাস বনে যাওয়ার আব্বাস। ‘আব্বাস’ চলচ্চিত্রে এ দুই চরিত্রে দেখা যায় অভিনেতা জয়রাজ ও নায়ক নিরবকে।

সাইফ চন্দন পরিচালিত এ ছবি গতকাল দেশে ৩৭টি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে। অ্যাকশন-রোমান্টিক ঘরানার এই চলচ্চিত্রটি নিয়ে প্রশংসা করছেন দর্শক ও হল কর্তৃপক্ষ।

গতকাল ৪টায় কেরানিগঞ্জের জিঞ্জিরা অবস্থিত ‘নিউ গুলশান’ সিনেমা হল ছিল দর্শকে পূর্ণ। ছবির গল্প ও মেকিং নিয়ে প্রশংসা করেন দর্শক। বিশেষ করে  নায়ক নিরব ও অভিনেতা জয়রাজের অভিনয় নিয়ে প্রশংসা করেন সবাই।

স্থানীয় কাপড়ের দোকানের কর্মচারী ফয়সাল বলেন, ‘আমি প্রতি শুক্রবারই সিনেমা হলে এসে ছবি দেখি। সাধারণ তো শাকিব খানের ছবি ছাড়া ভালো লাগে না। তবে এই ছবিটি দেখে ভালো লাগল। বিশেষ করে নায়ক নিরবকে আমরা ভিন্ন রকম একটি চরিত্র ও গেটাপে পেয়েছি। তিনি অনেক ভালো অভিনয় করেছেন। তা ছাড়া খল নায়ক বলতে আমরা শুধু মিশা সওদাগরবে বোঝি, এই ছবিতে জয়রাজ অনেক ভালো অভিনয় করেছেন।

সিনেমা হলে টিকেটম্যান আব্দুর রহমান বলেন, ‘গতকাল থেকেই দর্শক ছবিটি দেখে প্রশংসা করছে। গল্প, মেকিং, অভিনয় লোকেশন সব কিছু ভালো হয়েছে ‘আব্বাস’ ছবিতে। মনে হয় ছবিটি ভালো ব্যবসা করবে। আজ ও গতকাল আমাদের ভালো ব্যবসা হয়েছে।

মধুমিতা সিনেমা হলের কর্মচারী মজনু মিয়া বলেন, ‘গতকালই আমি ছবিটি দেখেছি, সুন্দর ছবি। এখন তো ছবি দেখতে গেলে মন টিকে না। কিছুক্ষণ দেখার পর বের হয়ে আসতে ইচ্ছে করে। তবে এই ছবিটি আমি টানা দেখেছি। ভালো লেগেছে ছবিটি দেখে। আরেকটা বিষয় ভালো লেগেছে, সেটি হচ্ছে লোকেশন। ছবির গল্প অনুযায়ী সুন্দর লোকেশন ব্যবহার করা হয়েছে।

তৃপ্তি প্রকাশ করে পরিচালক সাইফ চন্দন বলেন, ‘আমি যে আশা নিয়ে ছবিটি নির্মাণ করেছিলাম, দর্শকদের কাছে তা পাচ্ছি। সারা দেশ থেকে ফোনে অনেকেই প্রশংসা করছেন। বেশির ভাগ সিনেমা হল দর্শকে পূর্ণ। এই প্রশংসা উৎসাহ হয়ে কাজ করবে। আগামী দিনে আরো ভালো কিছু নির্মাণ করব ইনশা আল্লাহ্।

পুরান ঢাকার ছেলে আব্বাসের বেড়ে ওঠা এবং এলাকার ত্রাস বনে যাওয়ার গল্প দেখা যাবে এতে। সিনেমাটিতে নামভূমিকায় অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক নিরব হোসেন। তাঁর বিপরীতে রয়েছেন অভিনেত্রী সোহানা সাবা। গত ১৬ জুন ‘আব্বাস’ সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পায়। সেন্সর বোর্ডের সদস্যরা ছবিটি দেখে প্রশংসা করেন। সাইফ চন্দন এর আগে নির্মাণ করেছেন চলচ্চিত্র ‘ছেলেটি আবোলতাবোল মেয়েটি পাগল পাগল’। ছবিতে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন কায়েস আরজু ও আইরিন। ‘আব্বাস’ চলচ্চিত্রে জুটিবেঁধে অভিনয় করেছেন নিরব ও সোহানা সাবা। চলচ্চিত্রে নিরব-সাবা জুটি এবারই প্রথম। পুরোপুরি মৌলিক গল্পের ছবি ‘আব্বাস’ প্রযোজনা করেছে ঢাকা ফিল্মস অ্যান্ড এন্টারটেইনমেন্ট।

নিরব, সাবা ছাড়াও এই ছবিতে অভিনয় করছেন ডন, আলেকজান্ডার বো প্রমুখ। ‘ছেলেটি আবোলতাবোল মেয়েটি পাগল পাগল’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্র শুরু করেন সাইফ চন্দন। এরই মধ্যে নির্মাণ করেছেন ‘টার্গেট’। ‘আব্বাস’ তাঁর তৃতীয় চলচ্চিত্র।