মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আয়কর অধ্যাদেশে নতুন ধারা সংযোজন; বাড়বে বিনিয়োগকারীদের সুবিধা

বিপুল সরকার সানি॥ অর্থ আইন ২০২০ এর মাধ্যমে আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪ তে নতুন ধারা ১৯এএএএ সংযোজন করা হয়েছে। নতুন এই বিধান অনুযায়ী যে কোন ব্যক্তি করদাতার বিনিয়োগকৃত অংকের ১০ শতাংশ হারে কর পরিশোধ করে পূজিবাজারে কোন সিকিউরিটিজ বিনিয়োগ করলে বিনিয়োগকৃত অর্থের উৎস নিয়ে আয়কর কর্তৃপক্ষসহ অন্যকোন কর্তৃপক্ষ কোন প্রশ্ন উত্থাপন করতে পারবেন না।
দিনাজপুর উপ কর কমিশনারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, বিনিয়োগকারীদের সুবিধার্থে নতুন ধারায় ৬টি শর্ত রয়েছে। সেগুলো হলো- বিনিয়োগ অবশ্যই চলতি বছরের ১ জুলাই থেকে আগামী ২০২১ সালের ৩০ জুন সময়সীমার মধ্যে করতে হবে। বিনিয়োগের ৩০ দিনের মধ্যে কর পরিশোধ করতে হবে। উক্ত বিনিয়োগ সম্পর্কে উপকর কমিশনারের নিকট আইটি ডি ২০২০ ফর্মে (নতুন সংযোজিত বিধি ২৪বি অনুযায়ী) ঘোষণাপত্র দাখিল করতে হবে, এ ধারার অধীন ঘোষিত বিনিয়োগের তারিখ থেকে এক বছরের মধ্যে পূঁজিবাজার থেকে বিনিয়োগকৃত কোন অর্থ উত্তোলন করা হলে তা সংশ্লিষ্ট আয় বছরে করদাতার অন্যান্য উৎসের আয় হিসেবে গণ্য হবে। বিনিয়োগের তারিখে অথবা তার পূর্বে আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪ এর অধীন কর ফাঁকির অভিযোগে কোন কার্যধারা বা অন্য কোন আইনের অধীন আর্থিক বিষয়ে কোন কার্যধারা চালু হলে এ ধারা বিধান প্রযোজ্য হবে না। বি.ও একাউন্টে জমাকৃত টাকা সিকিউরিটিজে বিনিয়োগ না করলে এ ধারার সুযোগ গ্রহণ করতে পারবেন না বলেও জানা গেছে।
এছাড়া অর্থ আইন ২০২০ এর মাধ্যমে আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪ তে নতুন ধারা ১৯এএএএএ সংযোজন করার অপ্রদর্শিত সম্পত্তি, নগদ অর্থ, ইত্যাদি ক্ষেত্রে বিশেষ কর ব্যবস্থার বিধান হিসেবে এ ধারা সংযোজিত হয়েছে। নতুন এ বিধান অনুযায়ী কোন ব্যক্তি করদাতা পূর্বের যেকোন সময়ের অপ্রদর্শিত স্থাবর সম্পত্তির জন্য (জমির ক্ষেত্রে ও বিল্ডিং বা এ্যাপার্টমেন্টের ক্ষেত্রে) প্রতি বর্গমিটারে ১০ শতাংশ হারে কর পরিশোধ করে বর্ণিত স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি প্রদর্শন করতে পারবেন।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email