মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর ২০১৯ ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আয়ের অর্ধেক অর্থে সুগন্ধি ছড়িয়ে বেড়ান তিনি

সুবল রায়, দিনাজপুর : সামর্থ্য না থাকলেও প্রবল ইচ্ছাশক্তি থাকলেও যে মানুষের সেবা করা যায়; তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত দিনাজপুরের আতর বিক্রেতা আব্দুল জলিল। পায়ে হেঁটে দিনাজপুরের বিভিন্ন এলাকায় আতর বিক্রি করেন তিনি। তাতে যে অর্থ উপার্জন হয় তার অর্ধেক পরিমাণ অর্থের আতর লোকজনকে মাখিয়ে বেড়ান তিনি। এ জন্য এলাকার মানুষ তাকে ভালবেসে নাম দিয়েছে ‘আতর জলিল’।

স্থানীয় জানান, আব্দুল জলিল প্রায় ২৭ বছর ধরে পায়ে হেঁটে দিনাজপুর শহরের বিভিন্ন অলিতে-গলিতে আতর বিক্রি করে বেড়ান। তবে কেউ আতর ক্রয় করুক আর নাই করুক, হাসি মুখেই সবাইকে আতর মাখিয়ে দেন তিনি। কখনো বা জিরিয়ে নেওয়ার সময় আতরের পসরা সাজিয়ে বসেন, সেখানেও বিনামূল্যে আতর মাখানোর একই চিত্র।

প্রায় ৬০ বছর বয়সী এই মানুষটি এলাকার বেশ পরিচিত মুখ, যিনি কখনো লাভের হিসাব করেন না। তাই ভালবেসেই পরিচিতি পেয়েছেন ‘আতর জলিল’ হিসেবে। 

স্ত্রী, তিন ছেলে ও এক মেয়ের টানাটানির সংসার আব্দুল জলিলের। তবুও লাভের অর্ধেক টাকার পরিমাণ আতর মাখিয়ে বেড়ান তিনি। ধর্মের নামে এভাবে সুগন্ধি ছড়ানোয় গর্বিত পরিবারের সদস্যরা। 

আব্দুল জলিলের মতে, নবীর সুন্নত ও ভালবাসা থেকেই মানুষকে আতর মাখিয়ে বেড়ান। জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত আয়ের অর্ধেক অর্থ দিয়ে এভাবেই সবাইকে আতর মাখাতে চান তিনি। তার দাবি, সবচেয়ে ভালো আতরই বিক্রি করেন তিনি। এই বিশ্বাস থেকেই মানুষ তার কাছ থেকে আতর ক্রয় করেন। কেউ যাতে তার আতর নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করার সুযোগ না পায় এই কামনা করেন তিনি। 

দারিদ্রতার মাঝেও মানুষ ও দ্বীনের জন্য সুগন্ধি ছড়ানোর কাজে নিয়োজিত আব্দুল জলিল দিনাজপুর সদর উপজেলার নয়নপুর এলাকার বাসিন্দা।