মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ইউনাইটেড হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডে মৃত্যুর ঘটনায় মামলা

রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডে তিন করোনা রোগীসহ ৫ জনের মৃত্যুর ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সিআইডির তদন্ত দল। ফায়ারসার্ভিস একটি তদন্ত দল গঠন করেছে। ৭ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবে তারা।

বুধবার রাত ৯টার দিকে, হাসপাতালটির আইসোলেশন ওয়ার্ডে এ আগুনের সূত্রপাত হয়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস। ততক্ষণে দগ্ধ হয়ে মারা যান ৫ রোগী। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট কিংবা এসি বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসাইন জানান, ইউনাইটেড হাসপাতালের মূল ভবনের পাশে টেম্পোরারি মেটেরিয়াল দিয়ে করোনা রোগীদের জন্য আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরি করা হয়েছিল। সেখানে কোনো অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র ছিল না। তবে মূল ভবনে অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র ছিল। সেই অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র ব্যবহার করার সুযোগ পায়নি হাসপাতালের লোকজন।

তিনি আরো জানান, সেই আইসোলেশন ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে চারটি রুম আছে। চারটি রুমের একটি রুমে এসি দুমড়ে-মুচড়ে অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়। চারটি রুম অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক গোলযোগের কারণে সেটি বিস্ফোরণ হয়ে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। 

মৃতরা হলেন- মো. মাহবুব, মো. মনির হোসেন, ভারুন এ্যান্থনী পল, খাদেজা বেগম এবং রিয়াজউল আলম। এই পাঁচজনের মধ্যে তিনজন কোভিড-১৯ পজেটিভ ছিলেন, অন্যদুজন নেগেটিভ ছিলেন।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email