বৃহস্পতিবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

ইসরায়েলের পশ্চিম তীরে ব্যাপক সেনা মোতায়েন

inter
বিক্ষোভ ঠেকাতে অধিকৃত ইসরায়েলের পশ্চিম তীরে ব্যাপক সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার ইসরায়েলের সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে এ ধরনের তথ্য জানানো হয়েছে।
পবিত্র ভূমি জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্বীকৃতি এবং তেল আবিব থেকে দেশটির দূতাবাস সেখানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ঘোষণার পর ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভ ঠেকাতে এ ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হয়।
ইসরায়েলের সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, নতুনভাবে আরও সেনা মোতায়েন করা হবে এবং কিছু সেনা অপেক্ষমান অবস্থায় রাখা হয়েছে। যে কোনো প্রয়োজনে তাদের ব্যবহার করা হতে পারে।
অন্যদিকে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে নতুনভাবে ইন্তিফাদা বা অভ্যুত্থানের ঘোষণা দিয়েছে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ট্রাম্পের ঘোষণার পর এ ধরনের ঘোষণা দিয়েছে সংগঠনটির নেতা ইসমাইল হানিয়েহ।
ট্রাম্পের ঘোষণায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিশ্বনেতারা। ক্যাথলিক খ্রিষ্টানদের ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস থেকে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্রের পরম বন্ধু সৌদি আরবও ট্রাম্পের নিন্দা জানিয়েছেন। এছাড়া জাতিসংঘসহ ইউরোপীয় ইউনিয়নও ট্রাম্পের সমালোচনা করেছে।
জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে ট্রাম্পের ঘোষণার পর যুক্তরাষ্ট্রের পতাকা পুড়িয়েছে ক্ষুব্ধ ফিলিস্তিনিরা। এ ধরনের ঘোষণাকে কেন্দ্র করে আরও বেশি সময় ধরে ফিলিস্তিনিরা বিক্ষোভ করারও প্রতিজ্ঞা করেছেন।
এদিকে, বিক্ষুব্ধ ফিলিস্তিনিরা বলছেন, দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানের ক্ষেত্রে এটা মৃত্যুকে আলিঙ্গন করা এবং ট্রাম্প মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। অপরদিকে, হামাস সংগঠন বলছে, ট্রাম্প নরকের দুয়ার খুলে দিয়েছেন।