শনিবার ৩০ মে ২০২০ ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ঈদের পরও ঢাকা ছাড়ছে মানুষ

ঈদের পর সাধারণত মানুষের রাজধানীতে ফেরার কথা। কিন্তু ঈদের পরও মানুষ ঢাকা ছেড়ে বাড়ি যাচ্ছে। সেই সংখ্যা নেহায়েত কম নয়। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঈদের পর এখন ঢাকা থেকেও প্রচুর মানুষ যাচ্ছে, আবার ঢাকায় ফিরছে। দু’দিক থেকেই মানুষ আসা-যাওয়া করছে। এই সময় প্রচুর টিকিটও বিক্রি হচ্ছে। 

মঙ্গলবার ঈদের দ্বিতীয় দিনেও সকাল ১০টা থেকে দুপুর পর্যন্ত রাজধানীর বাস, লঞ্চ ও রেল ষ্টেশনগুলোতে ছিল ঘরে ফেরা মানুষের উপচে পড়া ভিড়।

এদের অনেকেই যাচ্ছেন বেড়াতে, কেউ কোরবানির মাংস নিয়ে যাচ্ছেন আত্মীয় স্বজনের বাড়ি। এদের অনেকে আবার মৌসুমি গরু ব্যবসায়ী, কসাইয়ের কাজে ঢাকায় এসেছিল ঈদের আগে।

ঈদের আগের দীর্ঘ যানজট আর ভিড় এড়াতে অনেকেই বাড়ি ফেরার জন্য বেছে নিয়েছেন আজকের দিনটিকে। তবে ঈদের পরে চাপ কিছুটা কম থাকলেও সকালের বৃষ্টি ও অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে ভোগান্তির শিকার অনেক যাত্রী।

ঈদের আগে যারা আনন্দ ভাগাভাগি করতে আপনজনের কাছে যেতে পারেননি, আজ তাদের চোখে মুখে উচ্ছ্বাস। বাড়ি ফেরার আনন্দ।

ষ্টেশনগুলোতে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখা গেছে। তবে ঈদের পর যাত্রী চাপ কিছুটা কম থাকলেও লঞ্চের কাঙ্ক্ষিত টিকেট না পাওয়ায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন অনেকেই। এছাড়া বাসেও বাড়তি ভাড়া নেয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়।

এদিকে টানা ছুটিতে ফাঁকা রাজধানীর রাস্তাঘাট নেই অতিরিক্ত গাড়ির চাপ। মগবাজার থেকে বোনের বাসা মিরপুরে এসেছেন রবিউল। সময় লেগেছে মাত্র ২০ মিনিট। অন্য সময় একঘন্টায়ও নিশ্চয়তা ছিলো না।

ঈদের আগে বাড়ি ফেরা হয়নি বরিশালের করাসেলের। তিনি জানান, ঈদের আগে টিকিট পেতে সমস্যা হলো তারপর আবার নানা জানযট ছিলো। এখন হয়তো একটু আরামে যেতে পারবো।

সকাল থেকে এমন মানুষের ভিড় দেখা গেছে রাজধানীর বাস স্টেশনগুলোতে। ছেড়ে যাওয়া বাসগুলো ছিল যাত্রীতে পূর্ণ। ট্রেনের টিকেটের জন্য কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের কাউন্টারের সামনে লাইন দেখা যায় সকালে। একাধিক যাত্রীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কেউ যাচ্ছেন বাড়ি, কেউবা বেড়াতে। ঈদের আমেজে কয়েকটা দিন মেতে থাকতে রাজধানী ছাড়ছেন তারা। 

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email