রবিবার ৯ অগাস্ট ২০২০ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনায় মোবাইলে গেম ও টিভির নেশায় আক্রান্ত হচ্ছে শিশু শিক্ষার্থীরা

মো. রফিকুল ইসলাম, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: বৈশ্বিক মহামারী নভেল করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাবে বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশই এখন বিপর্যস্ত। অর্থনীতি, স্বাস্থ্য, শিক্ষাসহ প্রতিটি ক্ষেত্রেই নাজুক অবস্থা বিরাজ করছে। চীনের উহান প্রদেশ থেকে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি হয়ে পুরোবিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশেও সংক্রমণ বিস্তার লাভ করেছে। করোনাভাইরাস পুরোবিশ্বকে করে দিয়েছে লন্ডভন্ড। তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা লাখ অতিক্রম করেছে। করোনাভাইরাস প্রার্দুভাবে চিরিরবন্দরে শিশু শিক্ষার্থীরা মোবাইলে গেম ও টিভিতে আসক্ত হয়ে পড়েছে। এতে বাড়িতে লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে যাচ্ছে শিশু শিক্ষার্থীদের। করোনাভাইরাসের প্রভাবে ইতিমধ্যেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হয়েছে। কিন্তু এর প্রভাব পড়েছে শিক্ষার্থীদের ওপর। শিক্ষার্থীরা মোবাইলে গেম, টিভি দেখার নেশায় আসক্ত হচ্ছে এবং তারা বিভিন্ন ধরণের বায়নাও ধরছেন অভিভাবকদের নিকট। পড়াশোনা যেটুকু করার সেটুকু নামমাত্রই করছে। বেশিরভাগ সময় তারা মোবাইলে গেম খেলছে। স্কুল খোলা থাকায় তারা নিয়মিত স্কুলের পাঠ শেষে বাড়িতে এসে পড়াশোনায় ব্যস্ত থাকতো। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে তারা আর পড়াশোনা করতে পারছে না। এছাড়া নেই কোন বিনোদনের ব্যবস্থা। তাই তারা আসক্ত হচ্ছে মোবাইলে গেমে।
নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক ক’জন অভিভাবক জানান, ভয়াবহ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সরকারের এ পদক্ষেপ মেনে নিয়েই বাড়িতে অবস্থান করছে শিক্ষার্থীরা। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারণে শিক্ষার্থীরা একঘেয়েমি হয়ে যাচ্ছে। স্কুল-প্রাইভেট না থাকায় তারা বাড়িতে মোবাইলে গেম খেলছে। তারা কিছুতেই কোন কথাবার্তা শুনছে না। আবার টিভিতেও মগ্ন হচ্ছে তারা। মোবাইল ফোন লুকিয়ে রাখলেও কান্নাকাটি করছে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসলে আমাদের ছেলেমেয়েদের পরিস্থিতি আরো অবনতি হতে পারে। তারা আরো জানান, করোনাভাইরাস দিনদিন বৃদ্ধি পাওয়ায় চিরিরবন্দরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিশু শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যত অবনতি হওয়ার পথে। করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে না আনতে পারলে বেড়ে যাবে এর সংক্রমণ। এতে ক্ষতির সম্মুখীন হবে শিশু শিক্ষার্থীসহ দেশ ও দেশের মানুষ।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email