শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

খানসামায় বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে অভিভাবকের বাড়িতে হামলা ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ

খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের খানসামায় কুতুবডাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের দ্বন্দ্বে শ্যামল চন্দ্র বিশ্বাস নামে এক অভিভাবকের বাড়িতে হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করার অভিযোগ হয়েছে।

থানা বরাবর দেয়া অভিযোগসূত্রে জানা যায়, উপজেলার গোয়ালডিহি ইউনিয়নের দুবলিয়া গ্রামে কুতুবডাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠনে পক্ষ নেয়ায় পূর্ব শত্রুতার জেরে ১৯ আগস্ট সন্ধ্যার পর শ্যামল চন্দ্র বিশ্বাসের উঠানে এসে অতর্কিত হামলা করে একই এলাকার কাজল বিশ্বাসের ছেলে মানিক বিশ্বাস, মৃত সুরেন বিশ্বাসের ছেলে সুবাস বিশ্বাস, হরেন্দ্র বিশ্বাসের ছেলে রয়েল বিশ্বাস, প্রফুল্ল বিশ্বাসের ছেলে উৎপল বিশ্বাস, সুবাস বিশ্বাসের ছেলে সুমন বিশ্বাস সহ ১০/১২ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি।

হামলাকারীরা শ্যামল বিশ্বাস ও তার স্ত্রী রনজিতা বিশ্বাসকে লাঠি দিয়ে বেপড়োয়া ভাবে মারধর শুরু করলে তারা জীবন বাঁচাতে বাড়ির ভেতর প্রবেশ করে বাড়ির গেট বন্ধ করেন। এ অবস্থায় হামলাকারীরা শ্যামলের বাড়ির গেট ভাঙ্গচুর করে এবং পরে তার ভাই প্রভাস চন্দ্র বিশ্বাসের বাড়িতে প্রবেশ করে প্রভাষের স্ত্রী দিপ্তী বিশ্বাসকে বেপড়োয়াভাবে মারধর শুরু করে শ্লীলতাহানী ঘটায়। এ সময় শ্যামল বিশ্বাসের ভাতিজি অষ্টমী বিশ্বাস ও দ্বিতি বিশ্বাস দিপ্তী বিশ্বাসকে রক্ষা করতে এগিয়ে এলে তাদেরকেও মারধর করে।

হামলার এক পর্যায় তারা অষ্টমী বিশ্বাসের গলার চেন সহ প্রভাষের বাড়িতে থাকা নগদ এক লক্ষ ২০ হাজার টাকা নেয় এবং অষ্টমী বিশ্বাসকে অপহরণের চেষ্টা করে। এতে দ্বিতি বিশ্বাস বাধা দিলে হামলাকারীরা ব্যর্থ হয়ে খড়ের গাদায় আগুন দেয়। এ ঘটনায় শ্যামল বিশ্বাস চিৎকার দিলে খড়ের আগুনে স্থানীয় প্রশাসন সহ এলাকাবাসী ছুটে এসে তাদের রক্ষা করে। এছাড়াও ঘটনার সময় শ্যামল বিশ্বাস ৯৯৯-এ ফোন করে পুলিশের সহায়তা চাইলে খানসামা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ব্যাপারে খানসামা থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মতিন প্রধান জানান, এ বিষয়ে অভিযোগ হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।