বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯ ৩রা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ঘোড়াঘাটে দিন দিন বাড়ছে শিশু শ্রমিকের সংখ্যা

মোঃ শফিকুল ইসলাম (শফি), ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলায় প্রায় সর্বত্র শিশু শ্রমিকের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। এদের মধ্যে অনেকেই ঝুঁকিপূর্ণ কাজের সঙ্গেও জড়িত। নিম্ন আয়ের পরিবারের শিশুরা দু-মুঠো অন্নের তাগিদে এবং সংসারের একটু স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে ঝুঁকিপূর্ণ কাজের সঙ্গে জড়াতে বাধ্য হচ্ছে। কোমলমতি এসব শিশু কিশোরদের যে বয়সে স্কুলে যাওয়ার কথা সে বয়সে তারা জড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন কঠিন কাজে। খোঁজ নিয়ে জানা যায় দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলায় প্রায় প্রত্যেকটি এলাকায় দারিদ্রের কারণে শিশু শ্রমিকের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এ সকল শিশু কেউ পিতৃহীন আবার কেউবা সৎ মায়ের অত্যাচারে পেটের দায়ে জীবন যুদ্ধে নেমেছে। উপজেলার সদরে বিভিন্ন চায়ের দোকানে, হোটেল-রেস্তোরা, ওয়েলডিং কারখানা, পরিবহন, মিল-কারখানা সহ অটো রিক্সা-ভ্যান চালানোর মত ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করছে শিশুরা পারিবারিক অস্বচ্ছলতার কারনে বিদ্যালয়ে না গিয়ে তারা বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ কাজের লিপ্ত হচ্ছে। উপজেলার রানীগঞ্জ বাজার, ওসমানপুর বাজার, বলগাড়ী বাজার, বলাহার, ডুগডুগি, বাগেরহাট, হরিপাড়া হাট, চাঁদপাড়া বাজার সহ আরও অনেক স্থানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে, ওয়েলডিং কারাখানা সহ শিশুদের কাজ করতে দেখা গেছে। উপজেলার উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শিশু-কিশোর ভাঙ্গারী ব্যবসার সাথে জড়িত। এ সকল শিশু-কিশোরা পুরনো লোহা-লক্কড়, ভাঙ্গা হাড়ি পাতিল, ভাঙ্গা প্লাষ্টিকের বালতি-বোতল-তেলের গ্যালন সহ অনেক ফেলনা জিনিস কুড়িয়ে মহাজনদের নিকট বিক্রি করে। দেশের প্রচলিত আইনে শিশু শ্রম নিষিদ্ধ থাকলেও এসব উপেক্ষা করে ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করছে। আর শিশুরা কম বয়সে বিদ্যালয়ে না গিয়ে নিজের অজান্তেই তাদের বাসা বাধছে রোগ-ব্যাধি। দারিদ্রতার কারণে শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত অনেক স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা। কর্মক্ষেত্রে তাদের ন্যর্য পারিশ্রমিকও পাচ্ছে বলে অনেকে অভিযোগ করে।