বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চিরিরবন্দরে স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ বর ও কনের পিতাকে জরিমানা

মো. রফিকুল ইসলাম, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ॥ চিরিরবন্দরে স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করে  দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক বর-কনেপক্ষকে জরিমানা করেছে। বর ও কনের পিতা নগদ অর্থ পরিশোধের মাধ্যমে মুক্তি পায়। এরপর কনের পিতার নিকট থেকে মেয়ের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত বিবাহ দেবেন না মর্মে মুচলেকা আদায় করা হয় বলে জানা যায়। এ ঘটনাটি গত ২৮ মে বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় উপজেলার নশরতপুর ইউনিয়ণের রাণীপুর গ্রামের মালুয়াপাড়ায় ঘটেছে।  জানা গেছে, উপজেলার নশরতপুর ইউনিয়ণের রাণীপুর গ্রামের মালুয়াপাড়ার মো. শহিদুল ইসলামের মেয়ে ৮ম শ্রেণির ছাত্রীর সাথে পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার আব্দুস সামাদের ছেলে আমিনুল ইসলাম (২৬) পারিবারিকভাবে সিদ্ধান্ত হয়। গত ২৮ মে বৃহস্পতিবার চলছিল বিয়ের আয়োজন। উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের নির্দেশে নশরতপুর ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশ ওই বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেয়। ওইদিন বিকেল আনুমানিক ৩টায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইরতিজা হাসান ওই বিয়ে বাািড়তে পুলিশ নিয়ে উপস্থিত হন। এসময় কনে অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় সেখানেই ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে আদালতের বিচারক বরকে ১ হাজার এবং কনের পিতাকে  ২ হাজার টাকা জরিমানা করেন।  পরে কনের পিতা শহিদুল ইসলামের নিকট থেকে মেয়ের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না মর্মে মুচলেকা আদায় করেন। চিরিরবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email