মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

জাতীয় সংগীতের অবমাননা ও জঙ্গীবাদকে সমর্থন করার অভিযোগে ৩জন গ্রেফতার

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী সহ রাষ্ট্রের গরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের ব্যঙ্গাত্বক ছবি আপলোড করা, জাতীয় সংগীতকে অবমাননা ও জঙ্গীবাদকে সমর্থন করে আক্রামণাত্মক, মিথ্যা ভীতিকর , মানহানিকর তথ্য সম্প্রচার করে বিভিন্ন শ্রেণি বা সম্প্রদায়ের মধ্যে শত্রুতা, ঘৃণা বিদ্বেষ সৃষ্টি করে সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা, বিশৃঙ্খলাসহ আইন-শৃঙ্খলার অবনতি মূলক পোস্ট দিয়ে নানা ধরনের মিথ্যা গুজব ছাড়ানো দায়ে ঠাকুরগাঁওয়ে ৩ জন যুবক কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় মামলা দায়ের করেছে।

৩ আগস্ট রাত ১ টা ১০ মিনিটে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার গড়েয়া ইউনিয়নের খামার ভোপলা নামক স্থান থেকে পুলিশের বিশেষ অভিযানে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার কৃতরা হলেন, স্থানীয় মো: রওশন আলীর ছেলে মো: নাজমুল হোসেন(২৯), মো: আব্দুল গণি মিয়ার ছেলে মো: রুবেল রানা বাবু (২৫) ও মো: হানিছ মিয়ার ছেলে মো: শফিকুল ইসলাম(২৫)।

মঙ্গলবার দুপুর তিনটার সময় ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এসব তথ্য জানানো হয়। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে ঠাকুরগাঁওয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামাল হোসেনে বলেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ঠাকুরগাঁও সদর থানা পুলিশ সংবাদ পায় যে, “লাল মিয়া” এবং ‍‍‍‍‌‌আমি মুসলিম নামের‌‌‌ ফেসবুক আইডি থেকে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নিয়ে ব্যঙ্গ করে ছবি আপলোড করা হচ্ছে ও গুজব ছড়ানো হচ্ছে। এছাড়াও জঙ্গীবাদকে সমর্থন করে ও জাতীয় সঙ্গীতকে অবমাননা করে প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

পরে পুলিশের বিশেষ অভিযানে অভিযুক্তরা আটক হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে গুজব ছাড়ানোর কাজে ব্যবহৃত দুটি স্মার্ট মোবাইল ফোন ও দশ টি বিভিন্ন ধরণের জঙ্গী মতবাদমূলক বই উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মোবইল ফোন পুলিশ পর্যালোচনা করলে ‍‌‌লাল মিয়া নমক ফেসবুক আইডিতে ইলিয়াস হোসেনের জাতীয় সংগীতের বিরুদ্ধে অবমাননামূলক বিবৃতির পোস্ট পায় পুলিশ।
উদ্ধারকৃত বই।

পুলিশ জানায়, ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীসহ রাষ্ট্রের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নিয়ে ব্যঙ্গাত্বক ছবি প্রচারণা ও জাতীয় সঙ্গীতকে অবমাননা করে পোস্ট পাওয়া গেছে এর জন্য ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। গ্রেফতাকৃতদের কাছ থেকে জিহাদী বই উদ্ধার করা হয়েছে এ থেকে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে যে, তাদের সাথে জঙ্গী সংগঠনের কোন সম্পর্ক থাকতে পারে। সম্পূর্ণ বিষয়টি খতিয়ে দেখতে পুলিশের তদন্ত চলমান রয়েছে। এছাড়াও তাদের সাথে আর কেউ জড়িত আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হবে।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল আবু তাহের মো: আব্দুল্লাহ্, ঠাকুরগাঁও সদর থানার অফিসার ইনচার্জ, তানভিরুল ইসলাম, ঠাকুরগাঁও প্রেসক্লাবের সভাপতি মনসুর আলী সহ জেলার কর্মরত, প্রিন্ট, ইলেক্ট্রিক ও অনলাইন মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email