বুধবার ২১ অগাস্ট ২০১৯ ৬ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জিপিএ-৫ মেধাবী মূল্যায়নের মাপকাঠি নয়, মেধাবীমুখ সংবর্ধনায় প্রফেসর ড. এম শাহনওয়াজ আলী।

খন্দকার এইচ আর হাবিব : ”সু-শিক্ষার আলোক বর্তিকা হাতে এগিয়ে চলো”শ্লোগানকে ধারন করে পরিস্ফুটন কর্তৃক ২০০২ সাল হতে মেধাবী মুখ সংবর্ধনা প্রদান করছে পরিস্ফুটন নামক একটি অরাজনৈতিক শিক্ষা উদ্বুদ্ধ করণ সংগঠন। গত ১৪ই আগষ্ট পার্বতীপুর উপজেলার মধ্যশিলা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় চত্তরে মেধাবী মুখ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর ড. এম শাহনওয়াজ আলী, সন্মানিত সদস্য বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মন্জুরী কমিশন ও বাংলাদেশম প্রেস কাউন্সিল, সাবেক রাকাব চেয়ারম্যান।প্রধান অতিথি তার বক্তব্য শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য বলেন,জিপিএ-৫ মেধাবী মূল্যায়নের মাপকাঠি নয়।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক ডাঃ রবিউল ইসলাম শাহ্ গোলাপ অধ্যক্ষ,নীলফামারী মেডিকেল কলেজ, মোঃ আকতারুল আলম শাহ্ মনা নিয়ন্ত্রক পারফেট্রি ভ্যান মেলে বাংলাদেশ প্রাঃলিমিটেড, ড. মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক উপজেলা মঙস্য অফিসার পবা, রাজশাহী, মোঃ আনোয়ার হোসেন, সিনিয়র প্রভাষক, ড্যাফোডিল ইন্টারঃ ইউনিভার্সিটি, মোঃ জাহাঙ্গির আলম, সহযোগি অধ্যাপক, রসায়ন বিভাগ, রংপুর কারমাইকেল কলেজ, মোঃ মমিনুল হক প্রদর্শক, বদরগন্জ সরকারি ডিগ্রী কলেজ, মোঃ জাকিরুল ইসলাম, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, মোঃ তছলিম উদ্দিন, প্রধান শিক্ষক মধ্যশিলা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়, মোঃ তৈয়ব আলী, সাবেক প্রধান শিক্ষক মধ্যশিলা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন জগ্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী নাসরিন জাহান লিজা, অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আহ্বায়ক সৈয়দ নাছরুল্লাহ পরিস্ফুটন। অনুষ্ঠানে পিএসসি, জেএসসি, এসএসসি, দাখিল, আলিম পর্যায়ের মোট ১৩০ জনকে মেধাবী মুখ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।এসময় এলাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান,অভিভাবক সুধিজন উপস্থিত ছিলেন।মরহুম আ্বলহাজ হাফিজুর রহমান পাইকার পরিস্ফুটনের প্রধান রুপকার ছিলেন।