শুক্রবার ৩ এপ্রিল ২০২০ ২০শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে দাপুটে বাংলাদেশের

দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে সফরকারী জিম্বাবুয়েকে ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের বাংলাদেশ। এর আগে একমাত্র টেস্ট ও তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের সবকটি ম্যাচে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে টাইগাররা। সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতেও জয় তুলে নেওয়া বাংলাদেশের কাছে সফরের সবগুলো ম্যাচেই হারের লজ্জায় ডুবলো জিম্বাবুয়ে। এর মধ্য দিয়ে নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবার ক্লিন সুইপের রেকর্ড গড়লো বাংলাদেশ। 

মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের দেয়া ১২০ রানের লক্ষ্য ২৫ বল হাতে রেখে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে পেরিয়ে যায় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। এর আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১১৯ রান তোলে সফরকারীরা।

মামুলি লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশকে ৭৭ রানের দুর্দান্ত এক ওপেনিং জুটি উপহার দেন লিটন দাস ও মোহাম্মদ নাঈম। ৩৪ বলে ৩৩ রান করে এমপোফুর বলে সাজঘরে ফেরেন নাঈম। তার ইনিংসে ছিলো ৫টি চারের মার। 

এরপর সৌম্য সরকারকে সঙ্গে নিয়ে নির্বিঘ্নে বাকি কাজটুকু সম্পন্ন করেন লিটন দাস। ৩৫ বলে অর্ধশতক তুলে নেন তিনি। শেষ পর্যন্ত লিটন দাসের ৬০ রানের ওপর ভরে ১৫.৫ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় টাইগাররা। লিটনের ৪৫ বলের ইনিংসে ছিলো ৮টি চারের মার। অপরপ্রান্তে ১৬ বলে দুই ছক্কায়  ২০ রানে অপরাজিত থাকেন সৌম্য সরকার। 

এর আগে, টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১২ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। ১০ বলে ১০ রান করে আল-আমিনের বলে উইকেটের পেছনে ধরা পড়েন ওপেনার তিনাশে কামুনহুকামুয়ে। 

দ্বিতীয় উইকেটে ব্রেন্ডন টেইলর ও ক্রেইগ আরভিনের ৫৯ রানের জুটিতে শক্ত ভিত পায় সফরকারীরা। দলীয় ৬৯ রানের মাথায় বিদায় নেন আরভিন (৩৩ বলে ২৯)। এর পর সফরকারী ব্যাটনসম্যানদের চেপে ধরে বাংলাদেশের বোলাররা। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকা দলটি শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১১৯ রান তুলতে পারে। 

একপ্রান্ত আগলে রেখে অর্ধশতক তুলে নেন ব্রেন্ডন টেইলর। ৪৮ বলে ৫৯ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। মোস্তাফিজুর রহমান ও আল-আমিন হোসেন নেন দুটি করে উইকেট। অভিষিক্ত হাসান মাহমুদ ৪ ওভার বল করে ২৫ রান দিলেও উইকেটের দেখা পাননি। 

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email