সোমবার ১৪ অক্টোবর ২০১৯ ২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জোরপূর্বক দেওয়াল নির্মাণে বাধা দেওয়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় ৬ জন হাসপাতালে

মোঃ জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা ॥ বিবাদমান একটি জমিতে জোরপূর্বক দেওয়াল নির্মানে বাধা দেওয়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় একই পরিবারের ৬ জন গুরুত্বরভাবে আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এদের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। এ নিয়ে উভয়পক্ষ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ২১ সেপ্টেম্বর (শনিবার) সকাল ৯টায় নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের নতুন বাবুপাড়া লালগেট এলাকায় ।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, এলাকার ইকবালের পুত্র ওয়াকারের সাথে প্রতিবেশী ফজলুর রহমানের ছেলে ওয়াকিলের জমির সীমানা নিয়ে দীর্ঘ দিন থেকে বিবাদ চলে আসছে। এ ব্যাপারে আদালতে মামলা বিচারাধিন রয়েছে। এমতাবস্থায় ঘটনার দিন ওয়াকিল (৪০) ও তার ভাই জামিল (৪৫) বিবাদমান ওই জমিতেই জোরপূর্বক দেওয়াল নির্মাণ করতে যায়। এতে ওয়াকারের পরিবারের লোকজন দেওয়াল নির্মানের প্রতিবাদ করে মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করার অনুরোধ জানায়। কিন্তু তাতে ওয়াকিল ও জামিল কর্ণপাত না করে উল্টো বহিরাগত লোকজন নিয়ে ওয়াকারের বাড়িতে প্রবেশ করে পরিবারের লোকজনের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় ওয়াকারের বাড়ির মূল ফটক বন্ধ করে দিয়ে ভিতরে লোহার রড, বাশ দিয়ে এলোপাথারী মারডাং করে। এতে ওয়াকারের পরিবারের প্রায় ৬ জন গুরুত্বরভাবে আহত হয়। আহতদের আর্তচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে আহতদের উদ্ধার করে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করেন এলাকাবাসী। এদের মধ্যে গুরুতর আহতরা  হলেন, ওয়াকার (৩৫), তার স্ত্রী চম্পা (২৬), দৃষ্টি প্রতিবন্ধি ছেলে ইব্রাহিম (৯), তার ভাই গোলজার (৪০), গোলজারের ছেলে মারুফ (৯), স্ত্রী শাবানা (৩০)।

এ ব্যাপারে ওয়াকিল মুঠোফোনে জানায়, বিবাদমান জমিটি নিয়ে মামলা আদালতে বিচারাধিন রয়েছে। তারা উল্টো আমাদের  লোকজনকেই মারডাং করেছে। সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ শাহজাহান পাশা জানান, মৌখিকভাবে এলাকাবাসী জানিয়েছে। তবে লিখিত অভিযোগ পেলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।