সোমবার ১৩ জুলাই ২০২০ ২৯শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ঠাকুরগাঁওয়ে করোনা নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে প্রশাসনের আলোচনা সভা

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁওয়ে করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে জেলা প্রশাসন আলোচনা ও মত বিনিময় করেছেন।
রোববার (০৫ এপ্রিল) সকাল ১১ টায় ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে জেলা প্রশাসকের করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা সভা করা হয়।
আলোচনা সভায়, জেলা প্রশাসক ড. কে এম কামরুজ্জামান সেলিম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নূর কুতুবুল আলম, পুলিশ সুপার মোহাঃ মনিরুজ্জামান, লেফটেন্যান্ট কর্নেল বোখতিয়ার রহমান, সিভিল সার্জন ডাঃ মাহফুজার রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দীপক কুমার, ঠাকুরগাঁও প্রেস ক্লাবের সভাপতি মনসুর আলী, জেলার বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরাসহ প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নুর কুতুবুল আলম জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্রিফিং এ বলেন, এ যাবত কালে বিদেশ ফেরত ২৮৬ জন প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয় ।তাদের মধ্যে ২৪৪ জনকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে । এ মুহুর্তে কোয়ারেন্টাইনে আছে মাত্র ৪৪ জন।এ জেলায় ৫জনকে সন্দিগ্ধ রোগীকে আইসোলেশনে নেওয়া হলেও এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত কোন রোগী সনাক্ত হয়নি।এ মার্চ হতে বিদেশ ফেরত নাগরিকের সংখ্যা ১ হাজার ৪শ ৭জন।টিকানা চিহ্নিত করা হয়েছে ২৮৮ জনের। কোবিড ১৯ চিকিৎসায় সদর হাসপাতালে আইসোলেশন প্রস্তত করা হয়েছে ২০ শয্যা।তন্মধ্যে চিকিৎসত ১৬ জন এবং নার্স ৪০ জন।পিইি মজুদ রয়েছে ১ হাজার ৩৪০পিস।এছাড়াও বেসরকারিভাবে হাসপাতাল প্রস্তু রাখা হয়েছে ২টি।ডায়াবেটিস হাসপাতালে শয্যা ৪০টি এবং গ্রামীন চক্ষু হাসপাতালে শয্যা ১০টি।এম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখা হয়েছে একটি।
এ যাবত কালে খাদ্য সহায়তা করা হয়েছে ২২ হাজার ৬৩৩ পরিবারকে এবং প্রাপ্ত অর্থে খাদ্য সামগ্রী ক্রয় করে বিতরণ করা হয়েছে ২ হাজার ৩৩৫জনকে। বর্তমানে ১৮৭.২১৪ মেট্রিক টন চাল এবং নগদ ৩ লক্ষ ৪ হাজার টাকা মজুদ রয়েছে যা জরুরী প্রয়োজনে ব্যয় করা হবে।বর্তমানে জেলার ২৪টি পয়েন্টে ১০ টাকা কেজি দরে চাল এবং ১৮ টাকা কেজি দরে আটা ওএমএস ডিলারের মাধ্যমে বিক্রি শুরু হয়েছে।
জেলা প্রশাসক ড.কে এম কামরুজ্জামন সেলিম বলেন, জেলায় এখন পর্যন্ত কোন করোনা রোগী সনাক্ত না হওয়ায় এবং এখানকার সংবাদকর্মীরা বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ পরিবেশন না করায় ধন্যবাদ জানান। সেই সাথে ঠাকুরগাঁও জেলাকে করোনামুক্ত জেলা হিসেবে রাখার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এছাড়াও তিনি নানা বিষয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করেন ও তাদের সহযোগিতা কামনা করেন। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সকলকে সরকারি নির্দেশনা মেনে চলে সচেতন হওয়া আহবান করেন তিনি।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email