মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০২১ ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ডোমারে আগুনে পুড়ে ১০টি পরিবার সর্বশান্ত।

মোসাদ্দেকুর রহমান সাজু, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি ॥ নীলফামারীর ডোমারে আগুনে পুড়ে ১০টি পরিবার সর্বশান্ত। বর্তমানে তারা খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে।
মঙ্গলবার(২রা মার্চ) সন্ধা ৬ ঘটিকায় উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের কৈগিলা গ্রামের ৫নং ওয়ার্ডের মৃত নুরুল হকের ছেলে সেরাজুল ইসলামের ঘড়ে বিদ্যুৎ এর সর্ট সার্কিট থেকে এই আগুনের সুত্রপাত ঘটেছে।এতে ১০টি পরিবারের প্রায় ৪০জন লোককে খোলা আকাশের নিচে বসবাস করতে দেখা গেছে।
আগুনে পুড়ে যাওয়া ক্ষতিগ্রস্থ পরিবাররা হলেন, মৃত নুরুল হকের ছেলে সেরাজুল ইসলাম, সামছুল হক, এমদাদুল হক, সাইফুল ইসলাম, মৃত হাচেন আলীর ছেলে মনছুর আলী, বক্কর আলী, তরিকুল ইসলাম, মৃত ওসমান আলীর ছেলে আব্দুল হক সাহেব, আজিজার রহমানের ছেলে আব্দুর রহিম, মনছুর আলীর ছেলে মকছেদুল। আগুনে পুড়ে যাওয়া পরিবারের আসবাবপত্র,স্বর্ণালংকার, টাকা পয়সা ও প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রাদি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে প্রায় ৯ লক্ষ্যাধিক টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী পরিবারের লোকজন।
এ বিষয়ে কথা হয় আবু বক্করের স্ত্রী মজিদা বেগমের সাথে তিনি জানান, আমি সন্ধা প্রায় ৬টার দিকে রাস্তায় শুকাতে দেওয়া গোবর আনতে যাই, এমন সময় দেখি ঘরে আগুন লেগেছে, আমার চোখের সামনে নিমিশেই ঘড়ের সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেল কোন কিছু বের করতে ও রক্ষা করতে পারলামনা। সামছুল হকের স্ত্রী লতা জানান, আমি আলু ক্ষেতে লেবারের কাজ করি কুম বাড়ীর ডাঙ্গায়, আগুন লাগার খবর পেয়ে বাসায় এসে দেখি আমার ঘরের কোন চিহ্ন নাই ঘড়ের ভিতরে যা ছিল সবেই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আমার মেয়ের বিয়ের জন্য ব্রাক এনজিও থেকে ৪৫ হাজার টাকা গত মাসে লোন নিয়েছি , লোনের সেই টাকা ঘড়ে ছিল,আগুন আমার সবকিছু শেষ করে দিয়েছে।
ডোমার ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স ষ্টেশন কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন(ভারপ্রাপ্ত) বলেন, আমরা খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ঘটনা স্থলে যাই, আগুন নিয়ন্ত্রনে আনি।আগুনে ৭টি পরিবারের সম্পুর্ণ পুড়ে গেছে এবং ৩টি পরিবারের আংশিক ক্ষতি সাধিত হয়েছে।
সোনারায় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমি খবর পাওয়ার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি আগুনে সবকিছু পুড়ে গেছে, আমার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৩ হাজার টাকা দিয়েছি এবং ভুক্তভোগী পরিবারদের নাম ঠিকানা ও বাড়ী পোড়ানো ছবি তুলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন দপ্তরে প্রেরন করেছি।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email