রবিবার ২২ জুলাই ২০১৮ ৭ই শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ডোমারে ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের সহযোগিতার দাবীতে মানববন্ধন

নীলফামারী  প্রতিনিধি : গত ১০ মে রাতে ডোমার উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরে চাল,আমন ধান রোপনে সহযোগিতা,কৃষি ঋণ,বৈদ্যুতিক বিল,এনজিও ঋণ মওকুপের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার সকাল ১১ ঘটিকায় উপজেলার জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের বেতগাড়া ধঞ্জনপুর বাজারে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের আয়োজনে মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়। সাবেক ছাত্রনেতা মতিউর রহমান রুবেলের সভাপতিত্বে ও যুবনেতা রবিউল আলম ভুট্টুর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন কৃষক আব্দুর রউফ,আউয়ুব আলী,মোজাফ্ফর হোসেন প্রমুখ।

মানববন্ধনে জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মনোয়ার হোসেন ও জেলা পরিষদ সদস্য আতাউর রহমান সাজু অংশ নিয়ে আন্দোলনের প্রতি একাত্মতা ঘোষনা করেন। মানববন্ধনে জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের প্রায় সহস্রাধিক কৃষক অংশ নেন।

বক্তারা কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন,গাছ আছে ধান নাই,জমি আছে বাড়ী নাই অথচ ঝড়ের ৬দিন পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত কেউ এসে আমাদের খোজ নেয়নি। তারা বলেন তাদের জমিতে কোন ধান নেই। প্রতি বিঘায় এক থেকে দুই কেজি ধান থাকলেও থাকতে পারে। অথচ কোন নেতা,জনপ্রতিনিধি এমনকি উপজেলা প্রশাসনের কেউ আমাদের খোজ করেনি। আমারা কিভাবে চলছি তা দেখারও কেউ নেই।

প্রতিদিনেই বাড়ীতে এনজিও কর্মীরা এসে কিস্তির জন্য চাপ দিচ্ছেন টাকা দিতে না পারায় তারা নানা হুমকি দিলেও কেউ দেখার নেই। মানববন্ধন যাতে করতি না পারি সেজন্য সকাল থেকেই নানাভাবে হুমকি দেওয়া হলেও আমরা আমাদের দাবীর জন্য মানববন্ধনে এসে দাড়িয়ে আমাদের কথা বলছি। তারা অবিলম্বে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে সরকারী সহযোগীতার জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

উল্লেখ্য, গত ১০ মে রাতে ডোমারের উপর দিয়ে স্মরন কালের প্রলয়ংকারী ঘুর্ণিঝড়ে উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। ঝড়ে আট হাজার হেক্টর জমির ধান নষ্ট হয়ে যায়। প্রায় ৫০ হাজার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়।