শনিবার ২৫ মে ২০১৯ ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

তামিম-সৌম্যর শুভ সূচনা

ত্রিদেশীয় সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচেই স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে রানের পাহাড় গড়েছিল ক্যারিবিয়ানরা। সেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে মঙ্গলবার ২৬১ রানে থামিয়ে দিয়েছে মাশরাফির টিম বাংলাদেশ। ফলে ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জিততে বাংলাদেশের প্রয়োজন ২৬২।

মঙ্গলবার ডাবলিনে ক্যাসেল অ্যাভিনিউতে টসে জিতে বাংলাদেশের বিপক্ষে ব্যাট করতে নেমে দারুণ শুরু করে দুই ক্যারিবিয়ান ওপেনার। শেষ পর্যন্ত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৬১ রানের থামতে হয় তাদের। এদিন দলীয় ৮৯ রানের মাথায় ওপেনিং জুটি ভাঙেন স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ।

নিজের প্রথম ওভারেই ১৬.২ ওভারে সুনীল অ্যামব্রিসকে ৩৮ রানে ফেনার তিনি। পরের ওভারেই সাকিব ড্রারেন ব্রাভোকে ১ রানে বিদায় করেন। দলীয় ৯০ রানে দুই উইকেট হারিয়ে কিছুটা সতর্কতায় ব্যাটিং শুরু করেন ওপেনার শাই হোপ ও রোস্টন চেজ। তৃতীয় উইকেট জুটিতে দলীয়  দুইশত রান পার করেন এ জুটি।

অবশেষে অধিনায়ক মাশরাফি ক্যারিবিয়ার শিবিরে আঘাত হানেন। নিজের শেষ দুই ওভারে তিন উইকেট তুলে নেন টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্তজা। কিন্তু তার আগেই সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন হোপ।

৪০.৫ ওভারের মাথায় মাশরাফির বলে রোস্টন চেজ ৫১ রান করে মোস্তাফিজের তালুবন্দি হন। তিন উইকেটে ক্যারিবিয়ানদের দলীয় রান তখন ২০৫। নিজের শেষ ওভারে জোড়া আঘাত হানেন মাশরাফি। 

বাংলাদেশের বিপক্ষে টানা তৃতীয় সেঞ্চুরি পাওয়া শাই হোপকে ব্যক্তিগত ১০৯ রান করে মাশরাফি বলে মিঠুনের তালুবন্দি হন। ১৩২ বলে ১১টি বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় এ রান করেন তিনি। ওভারের তৃতীয় বলে অধিনায়ক জেসন হোল্ডারকে ব্যক্তিগত ৪ রানে ফিরিয়ে দেন টাইগার এই পেসার। ৪২.৩ ওভারে ৫ উইকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দলীয় রান তখন ২১১ রান।

শেষ মুহূর্তে সাইফউদ্দিন ও মোস্তাফিজের জোড়া আঘাতে বড় ইনিংস গড়তে পারেনি ক্যারিবিয়ানরা। বল হাতে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্তজা ১০ ওভারে ৪৯ রানে নেন তিনটি উইকেট। এছাড়া সাইফউদ্দিন ১০ ওভারে ৪৭ রানে দুটি। সবচেয়ে বেশি রান দিয়ে মোস্তাফিজ নেন দুটি উইকেট। তিনি ১০ ওভারে খরচ করেন ৮৪ রান। এছাড়া সাকিব ও মিরাজ নেন একটি করে উইকেট।