সোমবার ৩০ মার্চ ২০২০ ১৬ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

তারাগঞ্জে রাতে নৈশ্য প্রহরী দিনে অফিস সহকারী

সুমন আহম্মেদ, তারাগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি ॥ রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলা ইউএনও অফিসের নৈশ্য প্রহরী শাহিন সরকারের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। 

জানা গেছে, রাতে নৈশ প্রহরী হিসেবে তার চাকুরিতে দায়িত্ব পালন করা কথা থাকলেও দাপটে সেই দায়িত্ব পালন করছেন না শাহিন।

 এদিকে দিনের পর দিন অফিস সহকারী হিসেবে দায়িত্ব পালনের নামে প্রতিনিয়ত চলছে উৎকোচ অনিয়ম ও দুর্নীতির মহোৎসব। ইউএনও অফিসে  বিভিন্ন কাজে আসা সাধারণ মানুষের কাছ থেকে নানা অজুহাতে বিপুল অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।  আর এই চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার সাধারন মানুষ। ভুক্তভোগী মহল সহ নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন জানান, ইউএনও অফিসের সিও আব্দুল জব্বার এর দাপটে নৈশ্য প্রহরী শাহিন সরকার এসব অনিয়ম দুর্নীতির মূল ভূমিকায় রয়েছেন। সকল কাজের উৎকোচ ও দখিনা ছাড়া কোন কথাই শুনেন না বলেও জানান তারা। প্রত্যেক কাজের আগে ও পরে সেই উৎকোচ ঘুষ না দিলে পরবর্তিতে আর কোন কাজ করবে না বলে হুমকিও দেন।

উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের ঘনিরামপুর ঝাকুয়াপাড়া গ্রামের মাছুমা আক্তার তার জন্ম সনদে নাম সংশোধন করতে আজ রোববার দুপুরে ইউএনও অফিসে যান। ওই সময় তার কাছে দুইশত টাকা হাতিয়ে নেন এবং কাগজ পেতে হলে আরও টাকা লাগবে বলে জানান। এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রায় দুই বছর পূর্র্বে যোগদান করেন শাহিন তারাগঞ্জ ইউএনও অফিসের নৈশ্য প্রহরী হিসেবে। এলাকাবাসি অভিযোগ করে বলেন, অনিয়ম ও দুর্নীতির মহোৎসব করছে শাহিন সরকার তার খুঁটির জোড় কোথায় ? যোগদানের পর হতেই সে জন্ম নিবন্ধন সহ নানা কাজে আসা সাধারন মানুষের কাছে কয়েক লক্ষ টাকার উৎকোচ অনিয়ম ও দুর্নীতির মহোৎসব সৃষ্টি করেছে।

নৈশ্য প্রহরী শাহিন সরকারের কাছে জানতে চাইলে বলেন, ‘‘আপনি কে, আগে পরিচয় দেন’’ টাকা নেওয়ার কথা জানতে চাইলে যাতায়াত ও অফিস খরচের বিষয়ে নেয়া হয় বলে জানান। আর আমার পরিচয় পদবী সহ বাকি সবকিছু সিও কে বলেন, উনি সব জানে বলবে এখন।

এবিষয় ইউএনও অফিসের সিও আব্দুল জব্বার বলেন, আমি আমার কথাই বলতে পারি না। আর মাত্র একমাস আছি অফিসে। ঘুষ নেয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, কারও কাছে টাকা নেই না দেই না। কে কি করলো তা বলতে পারি আমি। তবে কেউ অনিয়ম করলে কর্তৃপক্ষ তার ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

সচেতন মহল ও রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা নৈশ্য প্রহরী শাহিন সরকার সহ জড়িতদের ঘুষ গ্রহণের অপরাধে চাকুরিচ্যুত সহ কঠোর আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের জোড় দাবী জানিয়েছেন।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email