বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯ ৬ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

থাইল্যান্ডে প্রাক্তন সেনাপ্রধান প্রায়ুথই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত

থাইল্যান্ডের নতুন পার্লামেন্ট প্রাক্তন সেনাপ্রধান প্রায়ুথ চান-ওচাকেই প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত করেছে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে ২৪ মার্চ হওয়া সাধারণ নির্বাচনের প্রায় ১০ সপ্তাহ পর পার্লামেন্টে নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হলেন।

বিবিসি জানিয়েছে, বুধবার উভয় কক্ষের যৌথ অধিবেশনে পাঁচ বছর ধরে দেশ শাসন করা প্রায়ুথকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বেছে নেয় থাই পার্লামেন্ট। তার পক্ষে ভোট পড়ে ৩৭৫টি। পাঁচ বছর আগে সে দেশে নির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতা থেকে উৎখাত করেছিলেন এই প্রায়ুথ। তারপর থেকে তিনিই প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছিলেন। প্রায়ুথ চান-ওচা ২০১৪ সালে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী থাকসিন সিনাওয়াত্রার বোন ইংলাক সিনাওয়াত্রাকে ক্ষমতাচ্যুত করে থাইল্যান্ডের ক্ষমতায় বসেন। আর তার অধীনেই গত মার্চে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে বিরোধী ফিউ থাই পার্টি পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে বেশিরভাগ আসন লাভ করে। এই দলটিই থাকসিন সিনাওয়াত্রাকে উৎখাতের সঙ্গে জড়িত ছিল। এদিকে সামরিক জান্তার আমলে থাইল্যান্ডে যে নতুন সংবিধান রচিত হয় তাতে উল্লেখ রয়েছে, উচ্চকক্ষের ২৫০ আসনে কারা সাংসদ হবেন, তা সেনাবাহিনীরই ঠিক করার কথা। এর ফলে নিম্নকক্ষে প্রায়ু্থের দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলেও উচ্চকক্ষের প্রতিনিধিদের সমর্থনে তিনিই প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন এমনটিই ধারণা করা হচ্ছিল। তবে শুরু থেকেই থাইল্যান্ডের নতুন সংবিধান নিয়ে তাদের অসন্তোষের কথা বলে আসছিলেন বিরোধীরা। তাদের দাবি সামরিক জান্তার শাসন দীর্ঘায়িত করতেই এ সংবিধান প্রণয়ন ও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।