বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯ ৬ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের ঐতিহ্যবাহী ঋষিঘাট গঙ্গাঁ স্নান মেলা প্রসাশনের কড়া নজর

মো. শফিকুল ইসলাম শফিক, ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার ঋষিঘাট হিন্দু ধর্মালম্বীদের গঙ্গাঁ স্নান মেলা প্রসাশনের কড়া নজরদারীতে গতকাল বুধবার সম্পন্ন হয়েছে। ঘোড়াঘাট উপজেলার করতোয়া নদী কোল ঘেষে ঋষিঘাট নামক স্থানে প্রতি বছরের ন্যায় এই মেলা এবারও  বেশ উৎসব মুখর পরিবেশে সম্পন্ন হয়েছে। মেলাকে কেন্দ্র করে গঙ্গাঁ স্থানে পার্শ্ব বতী উপজেলা বিরামপুর, হাকিমপুর, নবাবগঞ্জ, পীরগঞ্জ, পলাশবাড়ী সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজার হাজার  নর-নারী এই মেলার জলসরবরে গঙ্গাঁ স্নান করে পাপ তাপ মোচন করেন। মেলাটি ভোর ৭টা থেকে গঙ্গাঁ স্নান শুরু হয়ে বেলা ১টার মধ্যে স্নান সম্পন্ন করে আগত হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন আম, কাঁঠাল, কলা, মুড়ি, দই সহ নানা দ্রবাদি একত্রে মিশ্রন করে ভক্ষণ করেন। পাশা পাশি তারা বিভিন্ন জায়গা থেকে আগত সাধু সন্নাসীদের নিকট ভক্তি ও পুজা অর্চনা করেন। দিনভর চলে গঙ্গাঁ দেবী, শিবসহ অনান্য দেব-দেবীদের পূজা অর্চনা। দেব-দেবীর পায়ে মানত করা হয় টাকা পয়সা মিঠাই, মুন্ডা। এই গঙ্গাঁ স্নানকে কেন্দ্র করে দিন ভর মেলায় সাংসারিক কাজে যাবতীয় জিনিস পত্র, মিষ্টি-মিষ্টান্ন, সবই বেঁচা বিক্রি হয়ে থাকে। মেলায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় ঘোড়াঘাট থানা পুলিশ, চৌকিদার ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কড়া নজরদারীতে সুষ্ঠভাবে স্নান ও মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। এই বিষয়ে মেলায় আগত এক হিন্দু ধর্মালম্বী প্রদীপ শীল নামে এক প্রবীণ ব্যক্তি জানান, এই জলসরবরে স্নান সম্পন্ন না হলে আত্মার শুদ্ধি আসে না, যার ফলে হিন্দু ধর্মালম্বীদের মাঝে এটি একটি পবিত্র স্থান। তিনি আরোও জানান, কথিত আছে এই মন্দিরে বড় বড় ঋষি, মনিষীর আগমন ছিল। তারা এ জলসরবরেই পূণ্য স্নান করত।  মেলাটিকে কেন্দ্র করে সরকারি অর্থে স্নানকারী মহিলাদের জন্য ঘর নির্মাণ সহ বসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ঘোড়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ আমিরুল ইসলাম জানান, মেলায় আগত দর্শনাথী সহ পূণ্য স্নান আসা মানুষের নিরাপত্তা দিতে ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ বাহিনীর মোতায়েন করা হয়।  এ বিষয়ে ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াহিদা খানম জানান, মেলাটি সুষ্ঠ ভাবে সম্পন্ন করার জন্য সব ধরনের সহযোগিতাসহ উপজেলা প্রসাশনের পক্ষ থেকে সার্বক্ষনিক মনিটরিং করা হয়।