শুক্রবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে “কমিউনিটি এওয়্যারনেস মিটিং অন টিবি-ডিএম কো-মরবিডিটি” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

মাহবুুবুল হক খান, দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরে “কমিউনিটি এওয়্যারনেস মিটিং অন টিবি-ডিএম কো-মরবিডিটি” শীর্ষক একদিনের সংক্ষিপ্ত সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (১৪ মার্চ) দিনাজপুর ডায়াবেটিস ও স্বাস্থ্য সেবা হাসপাতালের সহযোগিতায় বাডাস-ইউএসএইড চ্যালেঞ্জ টিবি প্রজেক্ট’র আয়োজনে হাসপাতালের সেমিনার কক্ষে এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

দিনাজপুর ডায়াবেটিস এসাসিয়েশনের সভাপতি আলহাজ্ব এ্যাড. মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডা. মওলা বকস চৌধুরী। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাডাস-ইউএসএইড চ্যালেঞ্জ টিবি প্রজেক্ট’র প্রজেক্ট ম্যানেজার মো. শফিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর ডায়াবেটিস এসাসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. সফিকুল হক ছুটু। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালের সুপার ডা. মো. আহাদ আলী, দিনাজপুর ডায়াবেটিস ও স্বাস্থ্য সেবা হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. হাসান আলী, ব্র্যাকের জেলা ম্যানেজার মো. ফিরোজ শাহ প্রমূখ।

বাডাস-ইউএসএইড চ্যালেঞ্জ টিবি প্রজেক্ট’র রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের কো-অর্ডিনেটর মো. নজরুল ইসলাম’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে দিনাজপুরের ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মো. মাসুদ রেজা খান, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. ইমদাদুল হক, দিনাজপুর ডায়াবেটিস ও স্বাস্থ্য সেবা হাসপাতালের চীফ কনসালটেন্ট ডা. আফসার আল মাহমুদসহ দিনাজপুর ডায়াবেটিস ও স্বাস্থ্য সেবা হাসপাতালের অন্যান্য চিকিৎসক, বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, যক্ষা ১০ হাজার বছরের পুরানো রোগ। তাই রোগ নিয়ন্ত্রনে আমাদের সকলকে নিরন্তর কাজ করতে হবে। বক্তারা বলেন, যক্ষা রোগির সংখ্যার দিক দিয়ে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান সপ্তম। অন্যদিকে ডায়াবেটিস রোগির সংখ্যাও আমাদের ৮৫ লাখের অধিক এবং এই সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। একজন ডায়াবেটিস রোগির শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল থাকার কারণে যক্ষায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি একজন স্বাভাবিক ব্যক্তির চেয়ে ২-৩ গুন বেশী। এ ছাড়া যক্ষায় আক্রান্ত হলে ডায়াবেটিক রোগির শরীরে এ রোগ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে ও রক্তের গ্লুকোজ নিয়ন্ত্রণ কঠিন হয়ে পড়ে। এ কারণে যক্ষার উপস্থিতি একজন ডায়াবেটিক রোগির মধ্যে যে ঝুঁকি তৈরী করে সেটা জেনে রোগিরা যেন পূর্বেই সতর্ক হতে পারেন এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারেন সে কারণে আজকের এই সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানের অয়োজন। যাতে করে ডায়াবেটিক রোগিরা উপকৃত হতে পারেন। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সকলকে সচেতন হওয়ার আহবান জানান বক্তারা।