শনিবার ৪ জুলাই ২০২০ ২০শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে বায়োফ্লোক বিষয়ক সেমিনার

কাশী কুমার দাস, স্টাফ রিপোর্টার ॥ হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একুয়া কালচার বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ আবু জাফর বলেছেন, সর্বাধুনিক বায়োফ্লোক পদ্ধতিতে চাষ করলে পুকুরের চেয়ে ১০ গুন বেশি মাছ উৎপাদন সম্ভব। বায়োক্লোক এক প্রকার  যৌবিক ক্রিয়া যা উপকারী অনুজীব ব্যাকটেরিয়া দ্বারা তৈরি করে এবং পানি ও বাতাসের সাহায্যে পানিতে ক্ষতিকারকঅ্যামেলিয়া দুর করে মাছের জন্য খাদ্য তৈরী করে। সারা বিশ্বে ২৫টির বেশী দেশে এই পদ্ধতিতে মাছ চাষ করে চাষীরা লাভবান হয়েছে। আমাদের দেশে এই পদ্ধতিতে মাছ চাষ করতে পারলে মাছে ভাতে বাঙালি নামের সার্থকতা আবারো ফিরে আসবে।

১৬ নভেম্বর শনিবার ফুলবাড়ী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন তফিউদ্দীন মেমোরিয়া হাই স্কুলের হলরুমে সম্মিলিত বায়োক্লোক মৎস্য চাষ খামারী সংস্থার আয়োজনে বায়োক্লোক বিষয় দিনব্যাপী সেমিনারে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন।

বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক মোঃ মাহাবুব আলম এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর সদর উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ হাদিউর রহমান, উপজেলা মৎস্য দপ্তরের এফ,এ মোঃ নুর আলী সরকার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত বায়োক্লোক মৎস্য চাষ খামারী সংস্থার আহবায়ক রুহুল আমিন সরকার। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সফল মাছ চাষী মোঃ মোস্তফাক আহম্মেদ, মোঃ আজম খান রানা, জয়নাল আবেদীন, মোঃ রফিকুল ইসলাম, মেসার্স হাই হ্যাচারী এন্ড ফিস ফার্মের ম্যানেজার শহিদুর রহমান। উক্ত সেমিনারে বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা হতে প্রায় ২ জন মৎস্য খামারী ও খামারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করে।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email