বৃহস্পতিবার ৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দু’গ্রুপের দ্বন্দ্বে স্থগিত হরিপুর উপজেলা আ. লীগের সম্মেলন

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : দলের দুই গ্রুপের দ্বন্দ্বের কারণে স্থগিত করা হয়েছে ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন। ইতোপূর্বে গত শনিবার (৯ নভেম্বর) জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় চলতি মাসের ২৩ তারিখে হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের দিন নির্ধারণ করা হয়েছিল।

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) বিকালে জেলা পরিষদ হল রুমে দলীয় অভ্যন্তরীণ সভায় সম্মেলন স্থগিতের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। একই দিন রাত সাড়ে ১০টায় গণমাধ্যমকে সিদ্ধান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা আ. লীগের সভাপতি ও ঠাকুরগাঁও-২ আসনের এমপি আলহাজ মো. দবিরুল ইসলাম। তবে সম্মেলন স্থগিতের পক্ষে নেই জেলা আ. লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক কুরাইশী। 

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরেই জেলার হরিপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগের কমিটিতে সদস্য বাতিল ও অন্তর্ভুক্তিকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে। গত বুধবার হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভাকে কেন্দ্র করে দলটির দুই পক্ষ লাঠি-সোটা নিয়ে ওই এলাকায় মুখোমুখি অবস্থান নেয়। বর্ধিত সভা বন্ধ করে দিয়ে প্রশাসন বুধবার সকাল ১১টায় ওই এলাকার চাপধা বাজার ও আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে পুলিশ মোতায়ন করে। এর জেরেই বুধবার পুরো উপজেলা জুড়ে অবস্থান নেয় দু’গ্রুপের নেতাকর্মীরা। 

সংঘর্ষের আশঙ্কা ও জনসাধারণর জানমালের নিরাপত্তা রক্ষার্থে বুধবার সন্ধ্যায় অনির্দিষ্টকালের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করেন হরিপুর উপজেলার নির্বাহী অফিসার আব্দুল করিম। ওই সময় তিনি বলেন, রাজনৈতিক সকল ধরনের সভা সমাবেশ নিষিদ্ধ। উপজেলায় কোনো দলীয় কার্যালয়ে পাঁচজনের অধিক লোক সমবেত হতে পারবে না। জারি করা ১৪৪ ধারা আজ মঙ্গলবার পর্যন্ত অব্যাহত রয়েছে। 

যদিও ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে গত শুক্রবার সকাল ৯টায় ডাঙ্গীপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আয়োজনে চৌরঙ্গী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের একটি ঘরে ইউনিয়ন আ. লীগের একটি বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। অবশ্য প্রশাসনের লোকজন টের পাওয়ার আগেই বর্ধিত সভার কার্যক্রম সমাপ্ত করে আয়োজকরা। 

এ বিষয়ে জেলা আ. লীগের সভাপতি ও ঠাকুরগাঁও-২ আসনের এমপি আলহাজ দবিরুল ইসলাম এমপি জানান, যেহেতু হরিপুর উপজেলায় ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও উপজেলা আ. লীগের বর্ধিত সভা সম্পূর্ণ হয়নি। তাই  আগামী ২৩ নভেম্বর সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে না। তাছাড়া নিজেদের মধ্যে দুটি পক্ষে কোন্দলের সৃষ্টি হয়েছে তা নিরসনের চেষ্টা চলছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করবো। 

জেলা আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক মাজহারুল ইসলাম সুজনসহ শীর্ষ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।