সোমবার ২২ অক্টোবর ২০১৮ ৭ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

দৈনিক পত্রিকাকে প্রতিদিনই পাঠকের প্রত্যাশা পূরণে ভুমিকা রাখতে হয়

লালমনিরহাট প্রতিনিধি : লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ বলেছেন, দীর্ঘ পথপরিক্রমায় সত্য প্রকাশে আপসহীনতার প্রমান রেখে দৈনিক যুগান্তর আজ উনবিংশ বর্ষে পদার্পন করলো। একটি দৈনিক পত্রিকাকে প্রতিদিনই পাঠকের প্রত্যাশা পূরণে ভুমিকা রাখতে হয়, দিতে হয় পরীক্ষা। প্রকৃত সংবাদপত্রের দায়িত্ব পালন করে যুগান্তর আগামীতেও সে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার প্রত্যয় রাখে পত্রিকাটি।
বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারী) বেলা ১২টায় প্রেসক্লাব চত্বরে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার ১৮ বছর পুর্তি ও ঊনবিংশ বর্ষে পদার্পন উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যেৃ তিনি এ কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, পত্রিকাটির সব বিভাগের কর্মী এ লক্ষ্যে উজ্জীবিত ও একাত্ম। ঘটনার গভীরে গিয়ে সত্যানুসন্ধানের ক্ষমতা যুগান্তরকে করে তুলেছে বিশিষ্ট। ঘটনা, ইস্যু বা বিষয়ের ওপর সম্ভাব্য সব দৃষ্টিকোণ থেকে নিবন্ধ প্রকাশই যুগান্তরের সব সময়ের নীতি।
লালমনিরহাট প্রেসক্লাবের সভাপতি মোফাখ্খারুল ইসলাম মজনুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন, পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক, পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম রিন্টু, জেলা মুক্তিযোদ্ধা (সাবেক) কমান্ডার মেজবাহ উদ্দিন, পৌর আ.লীগের সভাপতি মোফাজ্জল হোসেন।
অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আহমেদুর রহমান মুকুল, প্রথম আলো প্রতিনিধি আবদুর রব সুজন, ইনডিফেন্ডন্ট প্রতিনিধি আবু হাসনাত রানা, যুগান্তর প্রতিনিধি মিজানুর রহমান দুলাল, হাতিবান্ধা উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি ইলিয়াস বসুনিয়া পবন প্রমূখ।
আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক বলেন, যুগান্তর পত্রিকাটি আপোশ না করে জনস্বার্থে সত্যনিষ্ঠ সাংবাদিকতা করে আসছে। আমি বিশ্বাস করি, প্রকৃৃত সংবাদপত্র কখনও জন-আকাংক্ষার বিপরীতে অবস্থান নিতে পারে না। সরকার পরিবর্তন হতে পারে, কিন্তু জনগণ ও দেশ স্থায়ী। যুগান্তরের কাছে দেশের স্বার্থ সব সময়ই সবকিছুর ঊর্ধ্বে স্থান পেয়েছে। তিনি আরও বলেন, যুগান্তর নিরপেক্ষভাবে সমস্যার কথা তুলে ধরার পাশাপাশি দেশের সম্ভাবনার ওপরও জোর দিয়ে এসেছে। এটাই যুগান্তরের সবচেয়ে বড় অবলম্বন।
আলোচনা সভা শেষে কেক কেটে দিনটি উদযাপন করা হয়। পরে প্রেসক্লাব থেকে একটি র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীটি জেলার প্রানকেন্দ্র মিশনমোড় হয়ে আবার প্রেসক্লাবে এসে শেষ হয়।
অনুষ্ঠানটির সার্বিক সহযোগিতা ও সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন, এনটিভি রংপুর বিভাগীয় স্টাফ রিপোর্টার একেএম মঈনুল হক মঈন।