শুক্রবার ২ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ১৯শে মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

দ্বিতীয় দিন শেষে ৩২৬ রানে এগিয়ে বাংলাদেশ

বাংলাদেশের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিন ব্যাট করছে শ্রীলংকা। শুরুতেই শূন্য রানে দিমুথ করুনারত্নেকে হারানো শ্রীলংকা প্রতিরোধ গড়েছে কুসল মেন্ডিস ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভার ব্যাটে। চা-বিরতির আগে ৭৪ বলে এ জুটি সংগ্রহ করে ৫০ রান।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত  ৪৮ ওভার শেষে ১ উইকেটে ১৮৭ রান করেছে সফরকারীরা। ব্যাটিং করছেন কুশাল মেন্ডিস ৮৩(*) ও ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ১০৪ (*)। তবে ৯ উইকেট হাতে নিয়ে এখনও স্বাগতিকদের চেয়ে ৩২৬ রানে পিছিয়ে শ্রীলংকা।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৫১৩ রানের জবাবে ব্যাটিংয়ে নামা শ্রীলঙ্কার ওপেনার করুনারত্নেকে শুরুতেই বিদায় করেন মেহেদি হাসান মিরাজ। তৃতীয় ওভারে কোনো রান না করা করুনারত্নে স্লিপে থাকা ইমরুল কায়েসের তালুবন্দি হন। তখনও লঙ্কানরা কোনো রান তুলতে পারেনি।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ১২৯ দশমিক ৫ ওভারে ৫১৩ রান সংগ্রহ করে স্বাগতিকরা। টেস্টে এটি বাংলাদেশের পঞ্চম সর্বোচ্চ। দ্বিতীয় দিনে ৩৯ দশমিক ৫ ওভারে শেষ ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৯ রান যোগ করে বাংলাদেশ।

১৩৪ বলে সাতটি চার ও দুটি ছক্কায় ৮৩ ‍রান করে অপরাজিত থাকেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে মুস্তাফিজুর রহমান সুরাঙ্গা লাকমালের তৃতীয় শিকার হয়ে ব্যক্তিগত ৮ রানে ফেরেন।

প্রথম দিন শেষে ১৭৫ রানে অপরাজিত থাকা মুমিনুল হক দ্বিতীয় দিনে খেলতে নেমে আরও মাত্র ১ রান করেন। রঙ্গনা হেরাথের বলে ১৭৬ রান করে মেন্ডিসের তালুবন্দি হন তিনি। ২১৪ বলে ১৬টি চার ও একটি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। টেস্টে মুমিনুলের আগের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ছিল ১৮১। ২০১৩ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এ মাঠেই ওই ইনিংসটি খেলেছিলেন তিনি।

মুমিনুলের পর ব্যক্তিগত ৮ রানে ফেরেন মোসাদ্দেক হোসেন। হেরাথের বলেই তুলে মারতে গিয়ে সান্দাকানের তালুবন্দি হন তিনি। এরপর দলীয় ৪১৭ ‍রানে রানআউট হন মিরাজ। ১৯ বলে একটি চার ও একটি ছক্কায় ২০ রান করেন তিনি।

এরপর মাহমুদউল্লাহ ও সানজামুল ইসলাম মিলে অষ্টম উইকেট জুটিতে ৫০ রান যোগ করেন। টেস্টে ১৫তম হাফসেঞ্চুরিরও দেখা পান অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। সান্দাকানের বলে স্টাম্পিং হয়ে ২৪ রানে ফেরেন সানজামুল ইসলাম। পরের ওভারেই হেরাথের তৃতীয় শিকার হন তাইজুল ইসলাম (১)।

এ ছাড়াও প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের পক্ষে তামিম ইকবাল ৫২, ইমরুল কায়েস ৪০, মুশফিকুর রহিম ৯২ ও লিটন কুমার দাস শূন্য রান করেন।লংকার পক্ষে তিনটি করে উইকেট নেন লাকমল ও রঙ্গনা হেরাথ। দুটি উইকেট নেন লাকশান সান্দাকান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: (প্রথম দিন ৩৭৪/৪) ১২৯.৫ ওভারে ৫১৩ (তামিম ৫২, ইমরুল ৪০, মুমিনুল ১৭৬, মুশফিক ৯২, লিটন ০, মাহমুদউল্লাহ ৮৩*, মোসাদ্দেক ৮, মিরাজ ২০, সানজামুল ২৪, তাইজুল ১, মুস্তাফিজ ৮; লাকমল ২৩.৫-৪-৬৮-৩, কুমারা ১৫-১-৭৯-০, দিলরুয়ান ২৭-৪-১১২-১, হেরাথ ৩৭-২-১৫০-৩, সান্দাকান ২২৩-১-৯২-২, ধনঞ্জয়া ৫-০-১২-০)

শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংস: (৪৮ ওভারে ১৮৭/১*) (দিমুথ করুণারত্নে ০, কুসল মেন্ডিস ৮৩*, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা ১০৪*; মোস্তাফিজুর রহমান ০/৩১, সানজামুল ইসলাম ০/৫২, মেহেদী হাসান মিরাজ ১/৪৫, তাইজুল ইসলাম ০/৫৬, ০/৩)।

%d bloggers like this: