রবিবার ২১ অক্টোবর ২০১৮ ৬ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

নবাবগঞ্জে গভীর নলকুপের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ৫শ বিঘা বোরো আবাদ হুমকির মুখে

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) থেকে এম এ সাজেদুল ইসলাম(সাগর) : রোববার অভিযান পরিচালনা করে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার ৪নং শালখুরিয়া ইউনিয়নের বড় তেতুলিয়া কৃষক সমবায় সমিতির বিদ্যুৎ সংযোগের মিটার বিচ্ছিন্ন করেছে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব ও সহকারি কমিশনার ভুমি মো. আরাফাত হোসেন। চলতি রোপন মৌসুমে ওই গভীর নলকুপের অধীনে ৫শ বিঘা বোরো আবাদ হুমকির মুখে পড়েছে। ওই সমিতির সভাপতি মো. মশিউর রহমান জানান, দীর্ঘদিন ধরে বড় তেতুলিয়া কৃষক সমবায় সমিতির দুটি গভীর নলকুপ ওই গ্রামের আব্দুর রব তোতা ও সাবেক শালখুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. শফিকুল ইসলাম বেলাল উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসে গোপনে যোগসাজশ করে কৃষকের সমিতির গভীর নলকুপ দুটি ডিড মুলে ক্রয় করে নেন। এরপর থেকে সমিতির গভীর নলকুপ দুটি ব্যক্তি মালিকানায় পরিচালনা করে সেচ বানিজ্য করে হাতিয়ে নেয় মোটা অংকের অর্থ। এরপর সমিতির সদস্যরা পুন নির্বাচন করে বড় তেতুলিয়া কৃষক সমবায় সমিতি পরিচালনা করার দায়িত্ব নেয়। এদিকে সমিতির গভীর নলকুপে ব্যক্তি মালিকানার নামে বিদ্যুৎ মিটার সংযোগ থাকায় সমিতির নামে মিটার সংযোগ দিতে ব্যর্থ হয় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি দিনাজপুর-২। এরপর সমিতির পক্ষ থেকে উচ্চ আদালতে আবেদন করলে আদালত বিষয়টি সমাধা করার জন্য পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজারকে সমাধা করার দায়িত্বভার অর্পন করেন। এক পর্যায়ে উপজেলা সেচ কমিটি বিষয়টি নিয়ে সমাধাকল্পে আলোচনা করে। এতে সমাধা না হওয়ায় কৃষকেরা আলাদা মিটার দিয়ে সেচ কার্যক্রম শুরু করে। কৃষকেরা জানায়, প্রায় ৫শ বিঘা জমিতে ইতোমধ্যেই সেচ দেওয়া হয়েছে। ব্যক্তি মালিকানায় মিটার দুটির সংযোগ থাকায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর জেনারেল ম্যানেজারের নিকট বিচ্ছিন্ন করার আবেদন করে বেলাল ও তোতা। এ বিষয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব ও সহকারি কমিশনার মো. আরাফাত হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আইন অনুযায়ী সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। কৃষকের বোরো রোপাতে সেচ দেওয়ার জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর নবাবগঞ্জ জোনাল অফিসের সহকারি মো. আইয়ুব আলী জানান, সমবায় সমিতির গভীর নলকুপের ব্যক্তি মালিকানা থাকা বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। বর্তমানে সমিতির পক্ষ থেকে আবেদন পাওয়া গেলে নতুন নামে সংযোগ দেয়া হবে। ভুক্তভোগী কৃষকেরা নতুন বিদ্যুৎ মিটার সংযোগ দেয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবি জানান।