বুধবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০ ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নবাবগঞ্জে ৩ লাখ জন সাধারনের এক মাত্র রোগি পরিবহের এ্যম্বুলেন্স ৬ মাস যাবত বিকল

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) থেকে এম এ সাজেদুল ইসলাম(সাগর)ঃ সরকার যখন জনগনের সাস্থ্যসেবা দোর গোড়ায় পৌছে দেওয়ার কার্যক্রম হাতে নিয়েছে তখন দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের ৩ লাখ জন সাধারনের এক মাত্র রোগি পরিবহনের এ্যম্বুলেন্স টি ৬ মাস যাবৎ বিকল হয়ে পড়ে রয়েছে। হাসপাতালে সেবা নিতে আসা জরুরি রোগিদের অন্যত্র রেফার্ড করেন যখন কতৃব্যরত চিকিৎসক সে সময় সরকারি এ্যম্বুলেন্স বিকল থাকায় হয়রানির শিকারে পরিনত হন ভুক্তভুগিরা। রোগি পরিবহনে মাইক্রো বাস প্রাইভেট কার অধিক মুল্যে ভাড়া নিয়ে সুদুর ৯০ কিলোমিটার দিনাজপুর এবং রংপুর শহরে যেতে হয়। ভুক্তভুগিরা অভিযোগ করে জানায় মুমর্স রোগিদের পরিবহনের ক্ষেত্রে গাড়িতে অক্সিজেন সংযোগ দিতে হয়। এক্ষেত্রে প্রাইভেট কার ও মাইক্রো বাসে অক্সিজেন সংযোগ করতে না পারায় অনেক রোগি রাস্তায় প্রান হারায় । এ বিষয়ে সরেজমিনে গেলে এলাকাবাসি জানায় ৬ মাস ধরে এ্যম্বুলেন্স বিকল হয়ে গ্যরেজে পড়ে থাকায় এক দিকে যেমন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে এম্বুলেন্সের অন্যান্য যন্ত্রপাতি অপর দিকে ক্ষতি গ্রস্ত হচ্ছে সেবা নিতে আসা রোগিরা। উল্লেখ্য উপজেলা সাস্থ্য কমপ্লেক্স সমপ্রসারনে ৩১ শয্যার স্থানে ৫০ শয্যা উন্নিত হলেও ভবন নির্মান শেষ হলেও ৩১ শয্যার ও জনবল নেই। অথচ খোজ নিয়ে জানা গেছে কোন কোন হাসপাতালে দুইটি করে এম্বুলেন্স রয়েছে। আর কোথায় একটি নেই। এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে নবাবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য প্রসাসক ডাঃ মোঃ খায়রুল ইসলাম তপন জানান এম্বুলেন্সের জন্য কতৃপক্ষকে কয়েকবার পত্র দিয়ে নুতন এম্বুলেন্সের চাহিদা দেয়া হয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগিরা জানান কতৃপক্ষের উদাসিনতা আর অবহেলার কারনে ৩ লাখ মানুষের ভাগ্যে ৬ মাসে ও জুটছে না এম্বুলেন্স। বিষয়টি তদন্তপুর্বক নুতুন এম্বুলেন্স দেয়ার দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসি।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email