বৃহস্পতিবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

নির্বাচনে দলীয় শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে বিরলে আওয়ামীলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগ থেকে ৩ জনকে বহিস্কার

bi

বিরল (দিনাজপুর)  প্রতিনিধি ॥ দলীয় শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে বিরল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রনেতা জননন্দিত সমাজসেবক শফিকুল আজাদ মনি, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য তানজিউল ইসলাম লাবু ও ১২ নং রাজারামপুর ইউপি স্বেচ্ছাসেবলীগের সভাপতি মোঃ মিজানুর রহমান হিরাকে দলীয় পদ-পদবী থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। বিরল পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদের ২ জনকে ও রাজারামপুর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ১ জনকে বিদ্রোহী প্রার্থী হবার কারণে বহিস্কার করা হয়েছে বলে দলীয় প্রেস বিজ্ঞপ্তি সূত্রে জানা গেছে।
বৃহঃস্পতিবার উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল লতিফ ও সাধারণ সম্পাদক একেএম মোস্তাফিজুর রহমান বাবু এবং উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক হাসান ফরিদ বিদ্যুৎ এর পৃথক পৃথক যৌথ স্বাক্ষিরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্যটি জানায়। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয় বহিস্কৃতরা আর দলীয় কোন পরিচয় দিতে পারবেনা। সেই সাথে সর্তক করে বলা হয় আওয়ামীলীগ মনোনীত বিরল পৌরসভার মেয়র ও রাজারামপুর ইউপি’র চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীর বিরুদ্ধে কোন নেতা-কর্মী অবস্থান নিলে তার বিরুদ্ধেও অনুরুপ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
এ ব্যপারে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সদ্য দল থেকে বহিঃস্কৃত শফিকুল আজাদ মনির নিকট জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি করি। কারো ব্যাক্তিগত রাজনীতি করিনা। যারা আমাকে বহিঃস্কার করেছেন। তারা তাদের ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন। তারা দলের সংবিধান বিরোধী কাজ করে নিজেরাই অপরাধ করেছেন। আজকে যদি শৃংখলা ভঙ্গের কথা বলা হয়। তাহলে তারাই এই অপরাধের জন্য দায়ী। কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত ছাড়া কেউ আমাকে বহিঃস্কার করতে পারবেন না। তিনি জানান, জনগণ আমাকে দারুণ ভাবে ভালবাসে। আমি এই ভালবাসার পুরুস্কার স্বরুপ বিজয়ী হয়ে বিরল পৌরসভা মেয়র পদটি জননেত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার নিকট উৎসর্গ করবো এবং তার নির্দ্দেশনায় এ পৌরসভার উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।
অপর মেয়র পদপ্রার্থী তানজিউল ইসলাম লাবু আওয়ামীলীগের তিনি কেউ নন উল্লেখ করে জানান, আমি যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। পদ ছেড়ে দেয়ার পর আর দলের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করিনি। আমি আওয়ামীলীগের কাছে কখনো মনোনয়ন চাইনি। তাহলে তারা কিভাবে আমাকে বিদ্রোহী উল্লেখ করে বহিঃস্কার করে এ প্রশ্নের উত্তর তারাই দিবে।
এ ব্যপারে বিরল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক একেএম মোস্তাফিজুর রহমান বাবুর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, সে আওয়ামীলীগের সদস্য বলেই শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে।