রবিবার ২৫ অগাস্ট ২০১৯ ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পথচারীদের গলার কাটা একটি বটগাছ

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স  ও উপজেলা ভূমি অফিসের সামনে বালিয়াডাঙ্গী-লাহিড়ী যাতায়াতের রাস্তার পশ্চিম পার্শ্বের একটি বটগাছ পথচারীদের গলার কাটা হয়ে দাড়িয়েছে। এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাসসহ বিভিন্ন যানবাহন এবং এলাকার প্রায় ১০-১৫ হাজার পথচারী চলাচল করে। গাছটি পারাপারের সময় গত ৩ বছরে বেশ কয়েকটি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এ দুর্ঘটনায় কেউ হারিয়েছেন পা, কেউ নষ্ট করেছেন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র।

এলাকার সাধারণ মানুষ, জনপ্রতিনিধি ও পথচারীরা গাছটি কটার জন্য বহুবার বিভিন্ন দপ্তরে মৌখিক ভাবে জানালেও কোন ফল পায়নি। তবে গাছটি কাটার বিষয়টি নিয়ে ২০টিরও বেশি উপজেলা মাসিক সমন্বয় সভায় আলোচনা, দুজন জেলা প্রশাসক এবং ৩ জন ইউএনও যোগদানের পর পদক্ষেপের আশ্বাস দিলেও এখন পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত হয়নি গাছটি কাটার বিষয়ে। দ্বিতীয় ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শেষে দায়িত্ব গ্রহণের সময় সর্বশেষ গাছটি কাটার বিষয়ে পদক্ষেপ নিবেন বলে নব-নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আশ্বাস দিয়েছেন।

খোজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার ঐতিহ্যবাহী লাহিড়ী হাট থেকে পাট ক্রয় করে ঠাকুরগাঁও উদ্দেশ্যে যাওয়ার সময় গত ২০১৭ সালের ০৪ এপ্রিল এবং ১০ সেপ্টেম্বর পাট বোঝাই ট্রাক বট গাছের সাথে ধাক্কা খেয়ে পার্শ্বের ড্রেনের উপর উল্টে যায়। এতে দুবারেই ড্রাইভার আহত হয় এবং আংশিক পাট ড্রেনের নোংরা পানতে নষ্ট হয়। কয়েকদিন পূর্বে একই ভাবে গাছটি পারাপারের সময় ধাক্কা লেগে একটি পাওয়ার ট্রলি উল্টে গেলে পেছন থাকা মিস্ত্রিপাড়া গ্রামের এক মোটরসাইকেল চালকের পা ভেঙ্গে যায়।

গত ০৪ এপ্রিল ২০১৭ সালে পাট ভর্তি ট্রাক উল্টে যাওয়ার ঘটনা দেখে বালিয়াডাঙ্গী বনিক সমিতির সভাপতি ও ৮নং বড়বাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বদলী হয়ে যাওয়া তৎকালীন উপজেলা নিবার্হী অফিসার আ: মান্নানের বরাবরে গাছটির ডাল কর্তনের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আবেদন করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ: মান্নান সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসকের নিকট ২১ জুন ২০১৭ তারিখে গাছের ডাল কর্তনের প্রয়োজনী ব্যবস্থা গ্রহণের একটি পত্র প্রেরণ করেন। কিন্তু সেই আবেদন করার পর দীর্ঘ প্রায় ০২ বছর অতিবাহিত হলেও কোন সুফল পায়নি এলাকার সাধারণ মানুষ, জনপ্রতিনিধি এবং পথচারীরা।

বদলী হয়ে যাওয়া ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক আখতারুজ্জামানের সাথে যোগদানের পর মত বিনিময় সভায় বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ম্হোাম্মদ আলী জানান, এ গাছটির বিষয়ে একাধীকবার আলোচনা হয়েছে। উপজেলা উন্নয়ন সভায় আলোচনান্তে রেজুলেশনও হয়েছে। এতে কোন কাজ হয়নি। আর কত দুর্ঘটনা ঘটলে সিদ্ধান্ত নেবেন প্রশাসন।

ওই সভায় জেলা প্রশাসক স্থানীয় ভাবে বসে সিদ্ধান্ত নিয়ে তাকে অবগত করতে বলেন। তিনি বদলী নিয়ে চলে যাওয়ার পরে দুজন ডিসি দায়িত্ব পেলেও কেউই গাছটি কাটার বিষয়ে কোন উদ্যোগ নেননি।

গত বৃহস্পতিবার বদলী নিয়েছেন বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদুর রহমান মাসুদ। তিনি জানান, গাছটি কাটার বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান উদ্যোগ নিবেন। উপজেলা চেয়ারম্যান আলী আসলাম জুয়েল বলেন, নতুন উপজেলা নির্বাহী যোগদান করলেই প্রথমেই গাছটি যতদ্রুত সম্ভব কাটার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সাধারণ মানুষ যাতে ঝুকি ছাড়াই ওই রাস্তায় চলাচল করতে পারে সে ব্যবস্থা করে দেয়া হবে।