শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পলাশবাড়ীতে করতোয়া নদীতে ডুবে ২ বন্ধু’র মৃত্যু : আহত ৩

ঈদ আনন্দে বেড়াতে এসে গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে করতোয়া নদীর পানিতে ডুবে ২ যুবকের মৃত্যু হয়েছে। অপর আরো ৩ যুবতী আহত হয়েছেন। 
ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার দুপুরে উপজেলার হোসেনপুর ইউনিয়নের কিশামত চেরেঙ্গা গ্রামের করতোয়া নদীতে।  
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ঈদ খুশি উদযাপনে বগুড়া থেকে এক বন্ধুসহ সহোদর দুই ভাই-বোন পলাশবাড়ী উপজেলার হোসেনপুর ইউনিয়নের জগন্নাথপুর নানার বাড়ী আসে। নানার বাড়ীর আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও শুভাঙ্খীদের সাথে কুশলবিনিময়ের একপর্যায়ে তারা ওই এলাকায় বিচ্ছিন্ন ভাবে এদিক-সেদিক ঘুরাফেরা করতে থাকে। এদিন শুক্রবার দুপুরে নানার বাড়ীর পাশেই কিশামত চেরেঙ্গা গ্রাম এলাকায় করতোয়া নদীর পানি দেখতে যায়। তারা সবাই চেরেঙ্গা ভাঙ্গা বাঁধ নামক স্থানের পশ্চিম পার্শ্বে নদীতে উৎসুক বসতঃ ৩ যুবতী পানিতে নেমে পড়ে। এসময় ঘটনার আকস্মিকতায় পানিতে নেমে পড়া ওই ৩ যুবতী তীব্র স্রোতে ভেসে যাচ্ছিল। এদৃশ্য দেখে উপরে থাকা যুবকরা তাদের প্রাণ বাঁচাতে তড়িঘড়ি করে পানিতে নেমে পড়ে। এসময় যুবতীদের প্রাণ বাঁচাতে গিয়ে পানির তোড়ে ভেসে গিয়ে তারা নিজেরাই প্রাণ হারায়। 
স্থানীয়রা ঘটনাস্থল থেকে পরপর তাদের মরদেহ উদ্ধার করে। পরে একটি ভ্যান যোগে মৃত ২ যুবক ও ৩ যুবতীসহ ৫জনকেই পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসকরা আহত ওই ৩ যুবতীকে সুস্থ করতে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করেন। 
মৃতরা হলেন বগুড়া উপশহরের মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে সিয়াম (১৮) ও তার বন্ধু বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার বিহারহাট এলাকার মৃত শফিকুর রহমানের ছেলে সাজিদ (১৮)। আহতরা হলেন বগুড়া উপশহরের মৃত সেকেন্দার আলীর মেয়ে সিনথিয়া আফরিন প্রীথা (২২), পলাশবাড়ী উপজেলার হরিণমারী গ্রামের সাদেক আলীর মেয়ে সানজিদা আক্তার স্বর্ণা (১৯) ও গোয়ালপাড়া গ্রামের রেজওয়ানের স্ত্রী (২৫)। 
খবর পেয়ে থানা অফিসার ইনচার্জ মাসুদুর রহমান মাসুদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। নানার বাড়ীতে যুবকদ্বয়ের মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মৃতদের স্ব-স্ব এলাকায় নেয়ার প্রস্তুতি চলছিল বলে জানা গেছে।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email