বৃহস্পতিবার ২৪ মে ২০১৮ ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

পাকিস্তানে কলেজে তালেবান হামলা : নিহত ৯

পাকিস্তানের পেশওয়ারে একটি কলেজে তালেবান বন্দুকধারীদের হামলায় অন্তত ৯ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় ৩৭ জন আহত হয়েছে।
দেশটির আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ দফতর জানিয়েছে, নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ৪ হামলাকারী নিহত হয়েছে। সবমিলে এ ঘটনায় নিহতের সংখ্যা ১৩।
এরই মধ্যে হামলার দায় স্বীকার করেছে তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তান।
পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যমে ডন জানায়, শুক্রবার সকালে বোরকা পরিহিত সন্দেহভাজন হামলাকারীরা গুলি ছুড়তে ছুড়তে হোস্টেল ভবনে প্রবেশ করে। খবর পেয়ে পুলিশ, সেনাবাহিনী ও ফ্রন্টিয়ার কর্পসের সদস্যরা ঘটনাস্থলটি ঘিরে ফেলে। জিম্মিদের উদ্ধারে শুরু হয় নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযান। হেলিকপ্টার টহলের মাধ্যমে পুরো এলাকার ওপর নজর রাখে সেনাবাহিনী। শামা টেলিভিশনের প্রতিবেদনে বলা হয়, অন্তত তিন বন্দুকধারী ভোরের দিকে ধারাবাহিক গুলি চালিয়ে পেশাওয়ার কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে ঢুকে পড়ে।
এক ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে হামলাকারীরা নিহত হয়। খাইবার পাখতুনখোয়ার পুলিশ জানিয়েছে, নিরাপত্তা বাহিনীর সফল অভিযানের মাধ্যমে সব জঙ্গিকে পরাস্ত করা হয়েছে। অবশ্য, ঘটনাস্থলে থাকা পুলিশ কর্মকর্তারা ডনকে জানিয়েছেন, পরাস্তকৃত হামলাকারীর সংখ্যা ৪।
হামলার সময় ভেতরে ঠিক কতজন আবাসিক অবস্থান করছিলেন সে ব্যাপারেও সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়া যায়নি। ভেতরে ২০-২৫ জন ছিলেন বলে জানিয়েছে ডন। আর স্থানীয় সূত্রকে উদ্ধৃত করে শামা টিভি জানিয়েছে, সেখানে ৪০ জনের মতো আবাসিক অবস্থান করছিলেন।
সাঁজোয়া যানের মাধ্যমে আহতদের উদ্ধার করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে আছেন-স্টেশন হাউস অফিসার (এসএইচও), কনস্টেবল এবং শিক্ষার্থী। তাদের খাইবার টিচিং হাসপাতালে তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। হোস্টেল থেকে হতাহতদের উদ্ধারের কাজ এখনো চলছে।
আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ জানিয়েছে, হামলায় দুই সেনা আহত হয়েছে। তাদেরকে চিকিৎসার জন্য পাকিস্তানের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পেশওয়ারের আর্মি পাবলিক স্কুলে তালেবান বন্দুকধারীদের হামলায় ১৩৪ শিশু শিক্ষার্থী নিহত হয়।