বৃহস্পতিবার ১৬ অগাস্ট ২০১৮ ১লা ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার মধ্য দিয়ে শ্রমিক রাজ প্রতিষ্ঠার পথ নিশ্চিত করতে হবে-এমপি গোপাল

ফজিবর রহমান বাবু ॥ মহান মে দিবসের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে রাজ কায়েম করতে হবে। শ্রমিকদের দাবী ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় যার যার অবস্থান থেকে সবাইকে কাজ করে যেতে হবে। শিকাগো নগরীর হে মার্কেটে শ্রমিকরা তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় নিজেদের রক্ত ঢেলে আমাদেরকে আমাদের অধিকার আদায়ে সচেতন করে গেছেন। কিন্তু ওই ঘটনার এতোগুলো বছর পরেও আমাদেরকে এখনও শ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় দাবী তুলতে হচ্ছে। যা খুবই দুঃখজনক। আমাদেরকে এখনই সজাগ হতে হবে। এখনই নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সচেতন হতে হবে। এজন্য আমাদের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংবিধানে সমাজতন্ত্র, গণতন্ত্র, সাম্য শান্তির কথা সন্নিবেশিত করেছিলেন। এখন তাঁর সুযোগ্য কন্যা প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রমিকদের জন্য নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার মধ্য দিয়ে শ্রমিক রাজ প্রতিষ্ঠার পথ নিশ্চিত করতে হবে।

মহান মে দিবস উপলক্ষ্যে বীবগঞ্জ উপজেলা রিক্সা ও ভ্যান চালক শ্রমিক ইউনিয়নের আয়োজিত আলোচনা সভার প্রধান অতিথির বক্তব্য জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

বীরগঞ্জ উপজেলা রিক্সা ও ভ্যান চালক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ সিদ্দিক হোসেনের সভাপতিত্বে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বিনোদ চন্দ্র রায়ের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন, বীরগঞ্জ থানার ওসি সাকিলা পারভীন, বীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুর ইসলাম নুর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম ফিরোজ আলম, বীরগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মোশাররফ হোসেন,  রিক্সা ও ভ্যান চালক শ্রমিক ইউনিয়নের প্রধান উপদেষ্ঠা মোঃ মোনায়েম খান, শ্রমিক নেতা মো. জামাল প্রমুখ।

আলোচনা সভায় এমপি গোপাল বলেন, আমি যে কোন মানুষের সমস্যার কথা শুনলে ঘরে থাকতে পারি না। বিশেষ করে কোন শ্রমিক যদি অসুস্থ কিংবা বিপদে পড়েন, আমি তৎক্ষনাৎ ছুটে যাই। এটা যেন আমৃত্যু করে যেতে পারি সেজন্য সকলের দোয়া আশির্বাদ চাই।

এর পুর্বে রিক্সা ও ভ্যান চালক শ্রমিক ইউনিয়নের প্রধান উপদেষ্ঠা মোঃ মোনায়েম খানের বলিষ্ট নেতৃত্বে একটি বিশাল বর্ণাট্য র‌্যালী শহরের প্রধান প্রধান প্রদক্ষিণ করে। জমকালো এ আয়োজনে নির্মাণ শ্রমিকসহ সর্বস্তরের শ্রমিক-জনতা অংশ্রগ্রহণ করেন।