রবিবার ২৫ অগাস্ট ২০১৯ ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

প্রিমিয়ার ফুটবল লিগের দ্বিতীয় পর্বের সুচনা খেলায় জয় পেল বসুন্ধরা কিংস

নীলফামারী প্রতিনিধি ॥ প্রথম পর্ব শেষের ঠিক ১৮ দিন বিরতির পর প্রিমিয়ার ফুটবল লিগে(বিপিএল) দ্বিতীয় পর্বের খেলার সূচনায় জয় দিয়েই শুরু করেছে বসুন্ধরা কিংস। ফর্ণীর মতো ঘুর্নীঝড়ে কিংসরা উড়িয়ে দিয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকে।

বৃহস্পতিবার (৯ মে) বিকাল ৪টায় উত্তরাঞ্চলের নীলফামারীর শেখ কামাল আন্তর্জান্তিক স্টেডিয়ামে প্রথম রাউন্ডের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা বসুন্ধরা কিংস ৩-১ গোলে জয় পায়। এটি কিংসের হোম ভেন্যু।

খেলার প্রথম হাফে ১টি দ্বিতীয় হাফে ৩টি গোল হয়। কিংসের স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজোন, দ্বিতীয় পর্বের খেলা শুরুর আগেই সাংবাদিকদের বলেছিলেন দলে দ্বিতীয় পর্বের প্রথম ম্যাচ থেকেই আমরা প্রথম লেগের ধারাবাহিকতা বজায় রাখবো। থাকতে চাই সব সময় পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে।

কিংসদের এই জয়ের পেছনে মুখ্য ভুমিকা পালন করেছে ব্রাজিলিয়ান মার্কোস ভিনিসিয়াস ১টি ও রং মিস্ত্রি মতিন মিয়া ২টি। শেখ জামালের পক্ষে একমাত্র গোল করেন গাম্বিয়ার ইমেল সম্বু। কিংসের তিনটি গোলের সহায়তায় ছিল কোস্টারিকার ডেনিয়েল কলিংড্রেস।তবে এবার কিংসের স্প্যানিশ ডিফেন্ডার গোতর ব্লাসকে খেলতে দেখা যায়নি।

খেলা শুরুর প্রথম মিনিটেই শেখ জামালের শ্যামল মিয়া সুযোগ হাত ছাড়া করে গোলের। এরপরতিন মিনিটের মাথায় একইভাবে গোলের সুযোগ নস্ট করে গাম্বিয়ার ইমেল সম্বু।

৮ মিনিটের আক্রমনে বসুন্ধরা কিংস পেয়ে বসে প্রথম কর্ণার। শট নেয় ডেনিয়েলের । না শেখ জামালের গোলরক্ষক মোহম্মদ নাঈম। ৯ মিনিটে আরেকটি সুযোগ পায় কিংসের মার্কোস ভিনিসিয়াস। মধ্য মাঠ হতে লম্বা শট নিলে বল শেখ জামালের গোলবারের উপর দিয়ে মাঠের বাহিরে চলে যায়।
১০ মিনিটে পুনরায় মার্কোস ভিনিসিয়াস শট ধরে ফেলে শেখ জামালের গোলরক্ষক মহম্মদ নাঈম।

১২ মিনিটে কিংসের ডি বক্স এর একটু অদুর ফ্রি কিক পায় শেখ জামাল। কিক নেয় সোলমন কিং ক্যানফোম। পক্ষান্তরে ১৩ মিনিটের মাথায় গোলের সুযোগ নস্ট করে করে কিংস। ১৫ ও ১৬ মিনিটের মাথায় কিংসের ডেনিয়েল বল নিয়ে আক্রমন চালালে জামালের গোলরক্ষক নিশ্চিত গোল রক্ষা করে।
বসে থাকেনি শেখ জামাল। তাদেরও আক্রমন ছিল পাল্টা। ২৩ মিনিটের মাথায় একটি নিশ্চিত গোল হাতছাড়া করে শেখ জামালের ইমেল সম্বু। ২৪ ও ২৬ মিনিটেও গোল করার সুযোগ নস্ট করে শেখ জামাল।

তবে ৩৫ মিনিটে ৪১ সেকেন্ডে কিংসের মার্কোস ভিনিসিয়াস সুযোগ কাজে লাগিয়ে ফেলে। ডেনিয়াল বল দেয় বখতিয়ারকে। বখতিয়ার বল এগিয়ে দিলে কড় শটে মার্কোস ভিনিসিয়াস কিংসকে এগিয়ে নেয় ১-০ । প্রথম হাফে গোল পরিশোধে মরিয়া ছিল শেখ জামাল। তবে কিংরা নিজেরদের পায়ে বল রেখে খেলাটি নিয়ন্ত্রন করার চেস্টা করছিল।

দ্বিতীয় হাফের কিংস গোলের সংখ্যা বাড়াতে মরিয়া হয়ে খেললেও ৬ মিনিটের মাথায় শেখ জামালের সোলমনের কাছে পাস পেয়ে ইমেল সম্বু সুযোগ কাজে লাগিয়ে সমতা ফিরিয়ে আনে ১-১। ৮ মিনিটে কিংসের সুশান্ত ত্রিপুরাকে বসিয়ে মাঠে আসে হেমন্ত বিশ্বাস।

১০ মিনিটে কিংসের আক্রমনে কর্নার পেয়ে বসে তারা। কর্নার শট নেয় ডেনিয়াল। বল চলে আসে ইমনের পায়ে। টুক করে ঠেলে দেয় রং মিস্ত্রি মতিন মিয়ার কাছে। এমন সুযোগ পেয়ে মতিন মিয়া চমৎকার হেডে জামালের জালে বল জড়িয়ে দেয়। কিংস এগিয়ে যায় ২-১ গোলে।
শেখ জামাল পাল্টা আক্রমন চালিয়েও কাজ লাগাতে ব্যর্থ হয়।
১৮ মিনিটে এসে কিংসের মার্কোস ভিনিসিয়াস কাছ হতে বল পেয়ে রং মিস্ত্রি মতিন মিয়া এবােেরা সুযোগ লাগিয়ে দিয়ে কিংসকে ৩-১ এগিয়ে নেয়।
এক পর্যায়ে শেখ জামালের খেলা দুর্বল হয়ে পড়ে। ডেনিয়েল ও বখতিয়ারকে দিয়ে বেশ কয়েকবার শেখ জামালের জালে বল পাঠানোর চেস্টা করছিল।
২২ মিনিটে শেখ জামাল দুইজন প্লেয়ার পরিবর্তন করে মাঠে নামায় সাখাওয়াত হোসেন রনি ও আরিফুল ইসলামকে। শেখ জামাল একটু চাঙ্গা হয়ে গোলের মুখ দেখার চেস্টা চালালে ৩১ মিনিটে সুযোগ পেয়ে গোল করতে পারেনি ইমেল সম্বু। ৩২ মিনিটে কিংসের গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোর পরিবর্তে মাঠে নামে মিতুল হাসান। ৩৪ মিনিটে কিংসের মার্কোস ভিনিসিয়াসের আরেকটি গোলের সুযোগ থাকলেও ব্যর্থ হন।

দ্বিতীয় হাফের অতিরিক্ত সময়ে শেখ জামালের ইমেল কিংসের জালে বল পাঠানোরে সুযোগ পেলেও তার শটে বল চলে যায় গোলবারের উপর দিয়ে মাঠের বাহিরে। কিংসের বল কিক হতে না হতেই রেফারীর খেলার শেষ বাশী বেজে উঠে।
১২টিতে জয় এবং একটিতে ড্র করে ৩৭ পয়েন্ট অর্জন করে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকলো বসুন্ধরা। অপর দিকে ১৩টি খেলায় তিনটিতে জয়, ৫টিতে পরাজয় এবং পাঁচটিতে ড্র করে ১৪ পয়েন্টে রয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব।

আগামী ২৯ জুন নীলফামারী শেখ কামাল স্টেডিয়ামে হোম ভেন্যুতে বসুন্ধরা কিংসের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র।