বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ৩রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ফুলবাড়ীতে ঈদ শেষে কর্মক্ষেত্রে ফিরা মানুষের ভোগান্তি।

মেহেদী হাসান উজ্জল,ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: শত ভোগান্তি মাথায় নিয়ে যারা স্বজনদের সাথে ঈদের খুশি ভাগাভাগি করার জন্য বাড়ীতে আসে, ঈদ উদযাপন করার জন্য। ঈদের ছুটি শেষ হতে না হতেই, আবারো একই ভোগান্তির শিকার হয় কর্মক্ষেত্রে ফিরার সময়।

গত সোমবার দিনাজপুরের ফুলবাড়ী ঢাকাগামী কোট কাউন্টারে গিয়ে দেখা যায় কর্মক্ষেত্রে ফিরা মানুষের ভোগান্তি। কর্মক্ষেত্রে ফিরা কর্মজিবী মানুষেরা জানায়, মুল দামের দ্বি-গুন টাকা দিয়েও পাওয়া যাচ্ছেনা বাসের টিকিট, আর রেলের টিকিট যোগাড় করা যেন সোনার হরিণ যোগাড়ের মত।

এদিকে বাস কাউন্টারের ম্যানেজারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, তারা একদিনে যে পরিমান যাত্রী বহন করতে পারবে তার দ্বি-গুন তিনগুন যাত্রী এসে ভিড় জমাচ্ছে, তবে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার কথা তারা অস্বীকার করেন।

হানিফ এন্টার প্রাইজের ম্যানেজার আজিজার রহমান বলেন এই কাউন্টার থেকে প্রতিদিন দিন-রাত ২০টি বাস ছেড়ে যায়, ঈদ উপলক্ষে প্রতিদিনের জন্য আরো ৫টি বাস অতিরিক্ত নামানো হয়েছে, তবুও যাত্রী চাহিদা পুরন করা যাচ্ছেনা। একই অবস্থা, নাবীল, শ্যামলী, রাহবারসহ অনান্য বাস কাউন্টার গুলোতে।

বাস কাউন্টার গুলো জানায় পর্য্যায় ক্রমে ঈদের ছুটিতে আসলেও ঈদের ছুটি শেষ হয় একই সাথে যার ফলে এই বিড়ম্বনা সৃষ্টি হয়।

এদিকে ফুলবাড়ী রেলওয়ে ষ্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, আগামী ১৩ তারিখ পর্যন্ত টেনের টিকিট আগাম বিক্রি হয়ে গেছে।

উল্লেখ্য ফুলবাড়ী উপজেলাটি যোগাযোগের ক্ষেত্রে দিনাজপুর জেলার একটি অন্যতম উপজেলা। এই উপজেলা দিয়ে যাতায়াত করে ফুলবাড়ীসহ ফুলবাড়ী উপজেলার পার্শবতি পার্বতীপুর উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন, বিরামপুর , নবাবগঞ্জ, চিরিরবন্দরসহ পার্শবতি এলাকার বাসীন্দারা। এছাড়া বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি, বড়পুকুরিয়া তাপ বিদুৎ কেন্দ্র ও মধ্যপাড়া কঠিনশীলা প্রকল্পর মত গুরুত্বপুর্ন প্রকল্প, সেখানকার কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং উত্তারাঞ্চলের সর্ববৃহৎ বিনোদন কেন্দ্র স্বপ্নপুরীর দর্শনার্থীরা এই ফুলবাড়ী উপজেলা দিয়ে যাতায়াত করে। যার ফলে ফুলবাড়ী রেলওয়ে ষ্টেশন ও বাস কাউন্টার গুলোতে সারা বছরে যাত্রীদের ভিড় লেগে থাকে, ঈদের ছুটিতে এই ভিড় আরো ব্যপকভাবে বৃদ্ধিপায়।

ফুলবাড়ী রেলওয়ে ষ্টেশনের টিকিট মষ্টার সোহাগ বলেন ফুলবাড়ী রেলওয়ে ষ্টেশনে যে পরিমান টিকিট বরাদ্ধ রয়েছে, চাহিদা রয়েছে তার দ্বিগুন। ঈদ এসে এই চাহিদা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে, যার ফলে যাত্রীদের চাহিদা অনুযায়ী টিকিট দেয়া যাচ্ছেনা। এদিকে ফুলবাড়ী উপজেলার গুরুত্ব বিবেচনা করে ফুলবাড়ী রেলওয়ে ষ্টেশনের টিকিট বরাদ্ধ বৃদ্ধি করার দাবী জানিয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সচেতন মহল। ফুলবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মিলটন বলেন ফুলবাড়ী উপজেলাটি যেহেতু যোগাযোগের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপুর্ন উপজেলা, সেহেতু এই ষ্টেশনে টিকিট বরাদ্ধ বৃদ্ধি করার জন্য তিনি দাবী জানান। একই কথা বলেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ খুরশিদ আলম মতি। তিনি বলেন যোগাযোগের ক্ষেত্রে নিলফামারী জেলার সৈয়দপুর ও দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী উপজেলাটি অতিব গুরুত্বপুর্ন। তিনি বলেন নিলফামারী জেলার সৈয়দপুরে ট্রেনের টিকিট বেশি বরাদ্ধ থাকলেও ফুলবাড়ীতে নাই। তাই তিনি ফুলবাড়ীর গুরুত্ব বিবেচনা করে রেলের টিকিট বৃদ্ধি করার আহবান জানান।