মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর ২০১৯ ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ফুলবাড়ীতে মুখোমুখি ট্রেন সংর্ঘষ ৫০জন যাত্রী আহত। দূর্ঘটনায় তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন। সাময়িক বরখাস্ত-৪

SANYO DIGITAL CAMERAদিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরের ফুলবাড়ী রেল স্টেশনে দুটি আমত্মঃনগর ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় ট্রেনের অর্ধশতাধিক যাত্রী আহত হয়। দুর্ঘটনার পর থেকেই ফুলবাড়ী স্টেশনে কর্তব্যরত স্টেশন মাস্টার আব্দুল হামিদ, পয়েসম্যান উজ্জল পলাতক রয়েছে। দিনাজপুর-ঢাকা এবং পার্বতীপুর-খুলনা, পার্বতীপুর-রাজশাহী রম্নটে ৫ ঘন্টা রেলযোগাযোগ বন্ধ থাকার পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। এ ঘটনায় রেলওয়ে ৪ জন কর্মচারীকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। রেল কর্তপক্ষ দুটি ও জেলা প্রশাসক ১টি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন।

জানা গেছে, গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ৩.৪০ মিনিটের দিকে সৈয়দপুর থেকে ছেড়ে আসা খুলনাগামী আন্ত:নগর সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনটি ফুলবাড়ী স্টেশনের ১নং লাইনে অবস্থান করছিল। ৩.৪৫ মিনিটের দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আন্ত:নগর একতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি একই লাইনে চলে এসে দাড়িয়ে থাকা  সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনটিকে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে সীমান্ত এক্সপ্রেসের একটি এবং একতা এক্সপ্রেসের ৩টি বগী লাইনচ্যুত হয়। এছাড়া ট্রেন দুটির ইঞ্জিনটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। দুর্ঘটনায় উভয় ট্রেনের অর্ধশতাধিক যাত্রী আহত হয় এদের মধ্যে গুরুতর আহত অবস্থায় ২২ জনকে ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করা হয়েছে বলে এডিএমও খায়রুল বাসার জানায়। পরে সেখানে অবস্থার অবনতি হলে ৪ জনকে দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

ফুলবাড়ী থানা পুলিশ, পার্বতীপুর জিআরপি পুলিশ, ফায়ার ষ্টেশনের কর্মীসহ স্থানীয় জনতা ১২জনকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ফুলবাড়ী স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে ভর্তি করেছে। দায়িত্বরত স্টেশন মাস্টার আব্দুল হামিদ সহ দায়িত্বরত সকল কর্মচারী পলাতক রয়েছে। ফুলবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাবলু ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে দুটি আমত্মঃনগর ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। রেলওয়ে পশ্চিমঞ্চলের জেনারেল ম্যানেজার(জিএম) ফেরদৌস আলম আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টার ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয়ে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন এবং ৪ জন রেল কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্ত  করেছেন তারা হলেন আন্তঃনগর একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের লোকোমোটিভ ড্রাইভার আব্দুল করিম,সহকারী লোকোমোটিভ ড্রাইভার শরিফুল ইসলাম,ট্রেন পরিচালক আজিজুল ইসলাম ও ফুলবাড়ী রেলওয়ে ষ্টেশন মাষ্টার আব্দুল হামিদ।

এদিকে, সকাল ৭টার দিকে পার্বতীপুর থেকে উদ্ধারকারী ট্রেন এসে উদ্ধার কাজ শুরু করেছে। এ সময় কেন্দ্রীয় লোকোমোটিভ কারখানার প্রধান নির্বাহী হাছান মনসুর, এডিএমও খায়রুল বাসার, এরিয়া অপারেটিং ম্যানেজার শাহ আলম তালুকদার সহ অন্যান্য কর্মকর্মা-কর্মচারীরা ঘটনাস্থলে এসে উদ্ধার কাজের তদারকি করছেন।

রেলওয়ে পশ্চিমঞ্চলের জেনারেল ম্যানেজার(জিএম) ফেরদৌস আলম জানান, মঙ্গলবার ভোর রাতে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী রেল স্টেশনে দুটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় পশ্চিমজোনের চীফ ইঞ্জিনিয়ার রফিকুল আলমকে প্রধান করে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন- চীফ অপারেটিং সুপারেন্ডেনডেন্ট (সিওপিএস) মোশারফ হোসেন, চীফ মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার(সিএমই) দুলাল কুমার ও চীফ সিগন্যাল অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ার(সিএসটিই) আবুল কালাম। এছাড়া, পাকশী বিভাগের বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিও) সুজিত কুমার বিশ্বাসকে প্রধান করে ৫ সদস্যের অপর একটি তদমত্ম কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন- বিভাগীয়  মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার (ডিএমই-পাকশী) রফিকুল ইসলাম, বিভাগীয় সিগন্যাল অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ার (ডিএসটিই-পাকশী) মিজানুর রহমান, বিভাগীয় ইঞ্জিনিয়ার (ডিইএন-২পাকশী) মনিরুল ইসলাম ফিরোজী এবং বিভাগীয় মেডিক্যাল অফিসার (ডিএমও-পাকশী) ডাক্তার আনোয়ার হোসেন।

তিনি বলেন- দুটি তদন্ত কমিটিই দূর্ঘটনাস্থলে ঘটনাস্থলে পৌছে তদন্ত কাজ শুরু করেছে এবং যত শিগগির সম্ভব তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এদিকে দিনাজপুর জেলা প্রশাসক এডিএম আবু রহমানকে প্রধান করে ৪ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিঠি গঠন করেছে বলে জানা গেছে। ৫ ঘন্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে বলে কেলোকার প্রধান নির্বাহী হাছান মনসুর জানিয়েছেন।