বুধবার ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ ২৮শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশকে ১৭৭ রানের টার্গেট দিল ভারত

বাংলাদেশের বিপক্ষে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নামা ভারত নির্ধারিত ২০ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান তুলেছে। ভারতের বিপক্ষে জয়ের জন্য বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৭৭ রান।

প্রথম ১০ ওভারে ১ উইকেটে ৭১ রান করা দলটি শেষ দিকে আরও বেশি আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করে। শেষ পর্যন্ত ১৭৬ রান তুলে নেয় রোহিত শর্মার ভারত। দলের হয়ে হয়ে ৮৯ রান করে অপরাজিত থাকেন রোহিত শর্মা। এছাড়া ৪৭ ও ৩৫ রান করেন সুরেশ রায়না ও শেখর ধাওয়ান।

উদ্বোধনীতে শেখর ধাওয়ানকে সঙ্গে নিয়ে ৭০ রানর করার পর দ্বিতীয় উইকেটে সুরেশ রায়নাকে নিয়ে ফের ৯.২ ওভারে ১০২ রানের জুটি গড়েন ভারতীয় অধিনায়ক।

আগের ম্যাচের তুলনায় ভারতের বিপক্ষে সহজ টার্গেট পেল টাইগাররা। শ্রীলংকার বিপক্ষে ২১৪ রান তাড়া করে জয় পাওয়া মাহমুদউল্লাহ রিয়াদদের নেতৃত্বাধীন দলটির জন্য বলতে গেলে সহজ টার্গেট দিল রোহিত শর্মার ভারত।

বুধবার সন্ধ্যায় কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামেত্রিদেশীয় খেলায় টসে জিতে ভারতকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বাংলাদেশ। ব্যাটিং করতে নেমে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেন দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও শেখর ধাওয়ান।

পাওয়ার প্লেতে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৪৯ রান তুলে নেয় ভারত।

অনেক চেষ্টা করেও ভারতের উদ্বোধনী জুটি ভাঙতে পারছিলেন না টাইগাররা। ক্যাচ তুলে দিয়েই নতুন জীবন পান ধাওয়ান। ভয়ঙ্করহয়ে ওঠা ভারতীয় উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন পেস বোলার রুবেল হোসেন। রুবেলের বলে উইকেট উড়ে যায় শেখ ধাওয়ানের। তারআগে ২৭ বলে ৩৫ রান করে ফিরেনধাওয়ান।

সাজঘরে ফেরার আগে রোহিত শর্মার সঙ্গে উদ্বোধনীতে ৯.৫ ওভারে ৭০ রানের জুটি গড়েন শেখর ধাওয়ান।

অবশ্য ২২ রানেই ফিরে যাওয়ার কথা ছিলো ধাওয়ানের। সপ্তম ওভারে নাজমুলইসলাম অপুর বলে বাউন্ডারিতে ক্যাচতুলে দেন ভারতীয় এই ওপেনার।অনেক চেষ্টা করেও শেষ পর্যন্ত ক্যাচটি লুফে নিতে পারেননি লিটন কুমার দাস। নিজেকে হাওয়ায় ভাসিয়েও ক্যাচটি তালুবন্দি করতে না পেরে হতাশাইপ্রকাশ করেছেন জাতীয় দলের এ ওপেনার।

ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশের সামনে বড় লক্ষ্য দাঁড় করানোর কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘অন্য ম্যাচগুলোর থেকে পিচে তেমন কোন পার্থক্য নেই। দলের অন্য ব্যাটসম্যানরা ভালো পারফর্ম করছেন তাই নিজের ফর্ম নিয়ে বেশি চিন্তা করছেন না বলেও জানান রোহিত শর্মা। ভারতও ভালো বল করতে না পারা জয়দেব উদানকাতরার পরিবর্তে দলে নিয়েছে মোহাম্মদ সিরাজকে।

ব্রেট লি পিচ রিপোর্ট দেখে জানিয়েছেন, ‘অন্য ম্যাচগুলোর মতো এটি হাই স্কোরিং ম্যাচ না হতে পারে।’ এটাকে তিনি ৫০-৫০ ম্যাচ বলে মনে করছেন।

বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ (অধিনায়ক), সাব্বির রহমান, মেহেদী মিরাজ, রুবেল হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান, নাজমুল হাসান, আবু হায়দার রনি।

ভারত দল: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), শেখর ধাওয়ান, সুরেশ রায়না, মানিশ পান্ডে, দিনেশ কার্তিক, কেএল রাহুল, ওয়াশিংটন সুন্দর, বিজয় শঙ্কর, শারদুল ঠাকুর, মোহাম্মদ সিরাজ, যুবেন্দ্র চাহাল