বুধবার ২০ জুন ২০১৮ ৬ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বিরলে উচ্চ শিক্ষায় উপবৃত্তির প্রলোভনে শিক্ষার্থীদের নিকট অর্থ আদায়

আতিউর রহমান, বিরল (দিনাজপুর) ॥ বিরলে উচ্চ শিক্ষার জন্য উপবৃত্তির প্রলোভনে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নিকট অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। উপবৃত্তির টাকার আশায় শিক্ষার্থীরা কলেজ চত্ত্বরে নিজের নাম লিপিবদ্ধ করতে তীব্র ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। দিনাজপুরের বিরল মহিলা কলেজে উপবৃত্তি পাবার জন্য প্রতিদিন ভীড় করছে ২০১০ খ্রিঃ হতে এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা।

আবেদনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, অধ্যক্ষ মহোদয় নিজেই একটি সংস্থা পরিচালনা করেন। তিনি অনেককে সেলাই মেশিন ছাগলসহ বিভিন্ন আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন সংস্থার মাধ্যমে। এবার তিনি আমাদের কথা চিন্তা করে উচ্চ শিক্ষার জন্য প্রায় ৪ থেকে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত এককালীন উপবৃত্তি দেয়ার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন জানালে আমরা তাঁর নির্দেশনায় আবেদন করছি। সরজমিনে দেখা গেছে, ৫০০ টাকায় ব্যাংক একাউন্ট এবং ১০০ টাকায় অনলাইনে আবেদন করছে প্রত্যেক শিক্ষার্থী।

বিরল মহিলা কলেজ এর অধ্যক্ষ সুফিয়া নাহার মঞ্জু এইচএসসি পাশ শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রদান করা হতে পারে স্বীকার করে জানান, অনলাইনে আবেদন করার জন্য ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্র ও শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র স্ক্যানিং বাবদ ১০০ টাকা আদায় করা হয়েছে। অধ্যক্ষ সুফিয়া নাহার মঞ্জু’র নিজস্ব সংস্থা বিভাস এর মাধ্যমে প্রকল্প গ্রহণ করে ১হাজার ৫শত জন শিক্ষার্থীর নিকট আবেদন গ্রহণ করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৫ শতাধিক শিক্ষার্থী আবেদন করেছে। এদের মধ্যে থেকে কতজন এবং কি পরিমাণ সহায়তা পেতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন সেটা দাতা সংস্থা নির্ধারণ করবে। তবে এককালীন অনুদান দাতা সংস্থা দিবে বলে তাঁকে জনিয়েছেন বলে তিনি জানান।

ব্যাংক একাউন্ট খোলার জন্য এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের এজেন্ট ৫নং বিরল ইউপি’র উদ্যোক্তা আবু বক্কর সিদ্দিককে প্রতিজন ৫শত করে টাকা দিয়ে শিক্ষার্থীরা একাউন্ট খুলছে। সিদ্দিক জানান, ব্যাংকের দিনাজপুরের পুলহাট শাখায় তিনি এই টাকা জমা দেন। তিনি ব্যাংকের এজেন্ট। ব্যাংকের ওয়েবসাইটে তাঁর ক্রমিক নং ৪৯২ হিসাবে এজেন্ট তালিকায় নাম রয়েছে। শির্ক্ষীদের ১০ টাকায় ব্যাংক হিসাব খোলার জন্য বর্তমান সরকারের নির্দেশনা থাকা স্বত্ত্বেও কেন ৫শত টাকা নেয়া হচ্ছে এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তিনি এই একাউন্টগুলো খুলে দিচ্ছেন। টাকার পরিমাণের বিষয়ে তিনি জানেন না, শিক্ষার্থীরা নিজের আগ্রহেই আসছে।

বিরল পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব মোঃ মনজুরুল হাসান দুলু জানান, শিক্ষার্থীরা ১০ টাকায় একাউন্ট খুলতে পারবে সরকার অনুমোদিত সকল ব্যাংকে। তাঁর বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ইতিপূর্বে ১০ টাকায় একাউন্ট খুলেছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ,বি,এম, রওশন কবীর জানান, তিনি বিষয়টি শুনেছেন এবং মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে বিষয়টি দেখার জন্য বলেছেন।