শনিবার ৬ জুন ২০২০ ২৩শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিরামপুরে এক নারীর দাবিদার দুই স্বামী!

দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার এক নারীকে দুই স্বামী স্ত্রী হিসাবে দাবি করার মামলা নিয়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় ওই নারীর প্রথম স্বামীর করা মামলায় পুলিশ দ্বিতীয় স্বামী দাবিদারকে গ্রেপ্তার করে বুধবার (১০ জুলাই) বিকেলে দিনাজপুর আদালতে সোপর্দ করেছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বিরামপুর থানার উপ-পরিদর্শক আকমল হোসেন জানান, বিরামপুর উপজেলার মল্লিকপুর গ্রামের আবুল কাশেম মণ্ডলের ছেলে রুহুল আমিন খোকনের সাথে চাচাতো বোন ফারজানা আকতার তরুর ২০১০ সালে সামাজিকভাবে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে একটি ছেলে সন্তানের জন্ম হয়। সাত বছর বয়সী ছেলে সন্তানকে ফেলে ২০১৭ সালে স্ত্রী ফারজানা আকতার তরু নিরুদ্দেশ হয়ে যায়। 

এ ঘটনায় স্বামী রুহুল আমিন খোকন তার মামাতো ভাই রিয়াছত আজিম জুন্নুন জাহিদকে ১নং আসামি করে তিনজনের বিরুদ্ধে ২০১৯ সালের ৩১ জানুয়ারি দিনাজপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা করেন। আদালতের নির্দেশে মামলাটি বিরামপুর থানায় রেকর্ডের পর থেকে পুলিশ অনুসন্ধান শুরু করে।

প্রথম স্বামীর দায়ের করা মামলার প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার (৯ জুলাই) ঢাকার আদাবর থানার ডিএমপির সহায়তায় মিরপুর থেকে চার তলা জামে মসজিদের সামনে থেকে প্রধান আসামি রিয়াছত আজিম জুন্নুন জাহিদকে গ্রেফতার ও ভিকটিম ফারজানা আকতার তরুকে ৯ মাসের একটি কন্যা সন্তানসহ উদ্ধার করে বিরামপুর থানায় নিয়ে আসে।

বুধবার থানায় এসে প্রথম স্বামী রুহুল আমিন খোকন ফারজানা আকতার তরুকে স্ত্রী হিসাবে দাবি করেন এবং বলেন ফারজানা আকতার তরু তাকে তালাক দেয়নি।

অপর দিকে মামলার ১নং আসামি রিয়াছত আজিম জুন্নুন জাহিদ ফারজানা আকতার তরুকে স্ত্রী হিসাবে দাবি করে বলেন তার সাথে ফারজানা আকতার তরুর বিয়ে হয়েছে। এক নারীকে দুই স্বামী স্ত্রী হিসাবে দাবি করার বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। 

বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, ঘটনা নিস্পত্তির জন্য গ্রেফতারকৃত আসামি ও ভিকটিমকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। 

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email