শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ ৩রা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিশ্ব ব্যাপী স্তন ক্যান্সার সচেতনতা মাস উপলক্ষে র‌্যালী অনুষ্ঠিত

মোঃ নুর ইসলাম ॥ বিশ্ব ব্যাপী স্তন ক্যান্সার সচেতনতা মাস-২০১৯ উদযাপন উপলক্ষে ১০ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ঢাকায় “শ্রেষ্ঠ খাবার মায়ের দুধই সব শিশুকে তাই খাওয়াই, স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাই” এই প্রতিপাদ্য বিষয়ে সামনে রেখে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। এরই অংশ হিসেবে দিনাজপুরে খুরশিদ জাহান ইনস্টিটিউট অব ক্যান্সার রিসার্চ এন্ড হাসপাতাল ও দিনাজপুর কেয়ার নার্সিং কলেজ এর উদ্যোগে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করে। র‌্যালীতে অংশগ্রহণ করেন জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশন এর সাধারন সম্পাদক একেএম আজাদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল কবির, যুগ্ম সম্পাদক আবু তাহের আবু, নির্বাহী সদস্য আলহাজ্ব আবু বক্কর সিদ্দিক, দিনাজপুর কেয়ার নার্সিং কলেজের অধ্যক্ষ রেজিনা ইসলাম সহ নার্সিং কলেজের অন্যান্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। উল্লেখ্য যে স্তন ক্যান্সার বলতে শরীরের অন্যান্য স্থানের মত স্তনে অস্বাভাবিক কোষ বাড়ার কারণে বা কোন চাকা বা পিন্ডের সৃষ্টি হলে তাকে টিউমার বলে। শরীরের বিনা প্রয়োজনে অনিয়ন্ত্রিত কোন কোষ বিভাজন থেকে এর সৃষ্টি। প্রকৃতি বা বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী স্তনের টিউমার ২ ধরনের। এক ঃ বিনাইন টিউমার, এটা অক্ষতিকারক, উৎপত্তিস্থলের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে, দুরে বা কাছের অন্য কোন অঙ্গ, প্রতঙ্গকে আক্রান্ত করে না। দুই ঃ ম্যালিগন্যান্ট টিউমার আগ্রাসী, ক্ষতিকর। উৎপত্তিস্থলের সীমানা ছড়িয়ে আশপাশের অঙ্গ প্রতঙ্গ কিংবা গ্রন্থি আক্রান্ত করে, এমনকি রক্ত প্রবাহের মাধ্যমে দূরের কোন অঙ্গও আঘাত হানতে পারে। স্তনের ম্যালিগন্যান্ট টিউমারকেই ক্যান্সার বলা হয়।  স্তন ক্যান্সারের লক্ষন বলতে বোঝা যায়- স্তনে চাকা বা পিন্ড, নিপল বা বোঁটা, ভেতরে ঢুকে যাওয়া, অসমান বা বাঁকা হয়ে যাওয়া, নিপল দিয়ে অস্বাভাবিক রস বা রক্ত ক্ষরণ হওয়া, চামড়ার রং বা চেহারার পরিবর্তন এবং বকলতাং পিন্ড বা চাকার লক্ষন দেখা যায়।