বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০ ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বীরগঞ্জে টানা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত জনজীবন

বিকাশ ঘোষ, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে গত কয়েকদিন থেকে চলছে আশ্বিন মাসের বৃষ্টি। বীরগঞ্জের আকাশে আবহাওয়ার বিরূপ আচরণ ধারণ করেছে। বর্ষা পেরিয়ে শরতে এসে অবিরত ঝরছে থেমে থেমে বৃষ্টি। টানা বৃষ্টির কারণে ব্যবসা বাণিজ্য স্থবির, খেটে খাওয়া শ্রমজীবী সর্বস্তরের জনজীবনে চরম অস্বস্তি নেমে এসেছে।

গত সোমবার বিকেল থেকে এখন পর্যন্ত একটানা বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় অসহায় দিনমজুর মানুষগুলো পড়েছেন চরম বিপাকে। একই সঙ্গে পৌরশহরসহ প্রত্যান্ত গ্রামের হাট- বাজারস্থ ব্যবসায়ীদের ব্যবসা বাণিজ্যিক কর্মকাণ্ড স্থবির হয়ে পড়েছে।

প্রয়োজনীয় বিশেষ কোনো কাজে বাসা-বাড়ি থেকে বের হলেও, কাজ সারতে যানবাহনসহ নানা বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে খেটে খাওয়া সাধারন মানুষদের। শুধু তাই নয়, গ্রামীণ কাঁচা ও আধাপাকা রাস্তাঘাট গুলোও কাঁদায় পরিণত হয়ে যাতায়াত দুর্ভোগে পড়েছে শহর ও গ্রামাঞ্চলের মানুষরা। এছাড়াও কখনো গুঁড়ি গুঁড়ি কখনো আবার অবিরাম বর্ষণের কারণে কৃষক – কৃষাণিরা শীতকালীন শাক -সবজি ও বিভিন্ন ফসলের ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কায় রয়েছে।

ইতোমধ্যে কৃষকরা মাঠে রোপন করেছেন মরিচ,লালশাক, মূলা,লাউ, ফুলকপি, বাঁধাকপি,টমেটোসহ বিভিন্ন জাতের সবজি। জমির মাটি ভিজে কিংবা পানি জমে থাকায় ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। অবিরাম বৃষ্টিতে বিপাকে পড়েছে রিকশা -ভ্যান চালক সহ শ্রমজীবীরা।

রিকশা -ভ্যানচালক জনৈক জনাকুসহ কয়েকজন জানান,গত কয়েকদিন থেকে অঝোরে বৃষ্টির কারণে চার্জার ভ্যান নিয়ে রাস্তায় বের হতে পারছিনা। যদিওবা সকালে একবার গাড়ী বের করেছিলাম কিন্তু সকাল গড়িয়ে রাত এলেও একই অবস্থাই রয়েছে, এখন পর্যন্ত কোন যাত্রী পাওয়া যায়নি।

বীরগঞ্জ- পীরগঞ্জ সড়কের পাগলু চালক মোঃ জামাল হোসেন বলেন,সারাদিন দুটি খ্যাপ মেরেছি। তা দিয়ে বাজার খরচ করাই দায়ে হয়ে পড়েছে।

উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের কৃষক মহেন্দ্র রায় বলেন,শীতকালীন শাক-সবজি বৃষ্টির কারণে ইতোমধ্যে গঁজানো ক্ষেত নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

বীরগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবুরেজা মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন,বৃষ্টির কারণে যাতে করে কৃষকদের ফসলের ক্ষতি কম হয়, এবিষয়ে মাঠ পর্যায়ে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা কৃষকদের সার্বিক পরামর্শ প্রদান করছেন।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email