মঙ্গলবার ১৭ জুলাই ২০১৮ ২রা শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বীরগঞ্জে বাড়ীতে গ্রাম্য ধাত্রীর দ্বারা প্রসব করাতে গিয়ে প্রসুতির মৃত্যু

মোঃ আব্দুর রাজ্জাক ॥ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে নিজ বাড়ীতে গ্রাম্য ধাত্রী দ্বারা প্রসব করাতে গিয়ে জীবন দিতে হলো রেজিয়া বেগম নামে (৩৪) নামে এক প্রসুতিকে ।

শুক্রবার সকালে গ্রাম্য ধাত্রী দ্বারা প্রসব করাতে নিজ বাড়ীতে সন্তান প্রসব করার পর প্রসূতির মৃত্যু হয়।

বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. মাহামুদুল হাসান পলাশ জানান, শুক্রবার সকালে মরিচা ইউনিয়নের মাহতাবপুর গোলাপগঞ্জ এলাকার তোফাজ্জলের স্ত্রী রেজিয়া বেগমের প্রসব বেদনা উঠলে এলাকার গ্রাম্য ধাত্রী নুরজাহান বেগম নিজ বাড়ীতে সন্তান প্রসবের ব্যবস্থা করেন। সন্তান প্রসবের পর অতিরিক্ত রক্তক্ষরন হয়। কোন মতেই রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় অবস্থা বেগতিক দেখে প্রসূতির বাবা শামসুল হক বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার পথেই মারা যায় প্রসূতি রেজিয়া বেগম।

অতিরিক্ত রক্তক্ষরনে ওই প্রসূতি মারা যায়। তবে জন্ম নেয়া শিশুটি মাথায় আঘাত পেলেও তার চিকিৎসা দেয়া হয়েছে এবং এখন শিশুটি সুস্থ রয়েছে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, গ্রামাঞ্চলের সাধারন সহজ-সরল মানুষকে প্রভাবিত করে দালালেরা এইসব ডেলিভারী বিভিন্ন এলাকার গ্রামাঞ্চলে করছে। বাড়ীতে ডেলিভারী করার ঝুকির কারণে এসব প্রসুতিকে অকালে প্রান হারাতে হচ্ছে।

আর এসব কারণে বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা গ্রামবাসীকে হাসপাতালের সেবা নেয়ার জন্য উৎসাহিত করার পাশাপাশি বাড়ীতে সন্তান প্রসব বিষয়ে নিরুৎসাহিত করছেন।

স্থানীয় পল্লীচিকিৎসক মোকতার হোসেন জানান, গ্রাম্য ধাত্রী নুরজাহান বেগম প্রসুতির প্রসব করার পর অবস্থা বেগতিক দেখে প্রসুতির স্বামী তোফাজ্জল আমার কাছে আসে। আমি ব্যস্ত থাকায় দোকানের ছেলেটিকে পাঠিয়ে দেই। ছেলেটি এসে আমাকে রোগীর পরিস্থিতি খারাপ বলে জানালে আমি তাৎক্ষণিক ভাবে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ প্রদান করি।

এ ব্যাপারে প্রসুতির বাবা শামসুল আলম জানান, প্রতিবেশী নিজপাড়া ইউনিয়নের আওলাখুড়ী গ্রামের ধাত্রী নুরজাহান বেগমের পরামর্শে সকালে নিজবাড়ীতে সন্তান প্রসব করা হয়। পরে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে প্রসুতির অবস্থা খারাপ হলে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে সকাল ১১টায় চিকিৎসক প্রসুতি রেজিয়া বেগম মারা যায়। তবে আগে রেজিয়া বেগমের দুই সন্তান নরমাল প্রসব হয়েছে। সদ্য প্রসব শিশুটি কন্যা এবং এখন পর্যন্ত সুস্থ্য আছে বলে তিনি জানান।