রবিবার ৯ অগাস্ট ২০২০ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বীরগঞ্জে মাস্ক ঝুলছে কানে নাক ও মুখ খোলা

বিকাশ ঘোষ,বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের বীরগঞ্জে করোনার প্রকোপ বাড়লেও মাস্ক ব্যবহারে আগ্রহ নেই অনেকের। দোকানি ও ক্রেতারা কানে মাস্ক ঝুলিয়ে রেখেছে কিন্তু নাক ও মুখ ঢাকা নেই। এতে করে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে বলে বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, এপর্যন্ত বীরগঞ্জ উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় ৩০ জন। সুস্থ ১৭ জন এবং একজন পুলিশ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে নতুন ২জন বীরগঞ্জ সোনালী ব্যাংক শাখার কর্মচারী আক্রান্ত হওয়ার সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইয়ামিন হোসেন বীরগঞ্জ থানার সহযোগিতা নিয়ে সোমবার সকালে সোনালী ব্যাংক লকডাউন করে দিয়ে আগামী ১৩ জুলাই পর্যন্ত সকল কার্যক্রম স্থগিত করে দেন। দিন দিন নতুন করোনা সংক্রমণ বাড়লেও সচেতন হচ্ছেন না সকল শ্রেণী পোশার মানুষ। বীরগঞ্জ পৌরসভার দৈনিক বাজার ও উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজার ঘুরে দেখা যায়, অধিকাংশ মানুষ মাস্ক ব্যবহার করছে না। আর অনেকেই মাস্ক থাকলেও তারা মুখ ও নাক না ঢেকেই মাস্ক ব্যবহার করছেন। সোমবার বীরগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড, বিজয় চত্বর,তাজ মহল এলাকায় সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ডিম,কলা নিয়ে অনেককে বসে থাকতে দেখা যায়। সেখানে মানুষের ভিড় লক্ষ্য করা যায়। এসব ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরাও বিভিন্ন পণ্য ভ্যানে নিয়ে বিক্রি করছেন সেখানে। ক্রেতা সমাগম অনেক। অনেকে বলছেন,দীর্ঘক্ষণ মাস্ক ব্যবহারে একটা বিরক্তি ভাব চলে এসেছে। অনেকের নিঃশ্বাস নিতে ও শ্বাস ফেলেতে কষ্ট হয়। অনেকে আবার বাড়ি থেকে মাস্ক নিয়ে বের হতেই ভুলে যান। সন্ধ্যা ৭টার পর দোকানপাট বন্ধ হওয়ার পর পৌরশহরের মোড়ে মোড়ে দলবদ্ধভাবে বসে আড্ডা দিচ্ছেন। তাদের অনেকের মুখেই নেই মাস্ক। উপজেলার বিভিন্ন স্থানের বেশিরভাগ মুদির দোকানের মালিক ও কর্মচারীদের মাস্ক ব্যবহার দেখা যায়নি। ক্রেতাদের মুখেও নেই মাস্ক। মাস্ক ছাড়াই তারা ঘর থেকে বের হচ্ছেন। বীরগঞ্জ সাব-রেজিস্টার অফিস এলাকায় জুতা সিলাই কাজে নিয়জিত বিষু বলেন,প্রথম দিকে আমরা নিয়মিত মাস্ক ব্যবহার করতাম। মাস্ক ব্যবহার করলে কেমন যেন অসুস্থবোধ লাগে। তবে এটা আমাদের নিজেদের জন্যই ব্যবহার করা উচিত। বীরগঞ্জ হাসাপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা,আফরোজ সুলতানা( লুনা) বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মানা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা অত্যন্ত জরুরি। একই সাথে ঘরের বাহিরে বের হলে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক। তিনি বলেন, জনগণের মধ্যে অসচেতনতার কারণে নির্বিঘ্নে রাস্তায়,অলিতে গলিতে,মোড়ে মোড়ে ও চায়ের দোকানে আড্ডায় দিন দিন করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এভাবে চলতে থাকলে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। একই সাথে জনগণকে সচেতন হয়ে বিনা প্রয়োজনে ঘরের বাহিরে বের না হওয়া এবং প্রয়োজনে বের হলেও মাস্ক ও হ্যান্ড গ্লাভস ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন। বীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মতিন প্রধান জানান, করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব মানতে জনগণের মাঝে প্রচার-প্রচারণা চালানো হচ্ছে। একই সাথে অলিতে- গলিতে অযথা আড্ডা ও জনসমাগম বন্ধ,সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়ে দোকানপাট বন্ধ করা হচ্ছে কিনা এ বিষয়ে পুলিশের নজরদারী ও টহল অব্যাহত রয়েছে। বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইয়ামিন হোসেন মুঠোফোনে জানান, মাস্ক না পড়ে বের হলেই শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা হবে।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email