সোমবার ১৪ অক্টোবর ২০১৯ ২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বীরগঞ্জে ১৫৭ পূজামন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতির শেষ সময়ে ব্যস্ত প্রতিমা শিল্পীরা

বীরগঞ্জ, দিনাজপুর থেকে বিকাশ ঘোষ ॥ শরৎ এলেই সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মনে দোলা দেয় শারদীয় দুর্গোৎসব। আগামীকাল ২৮ অক্টোবর মহালয়া এর মধ্যদিয়ে হিন্দু ধর্মাম্বলীদের বৃহৎ এই দুর্গোৎসব। এবার দেবী দুর্গার আগমন অর্থাৎ মহাষষ্ঠী পড়েছে ৪ অক্টোবর। পঞ্জিকা মতে এবার দেবী আসছেন ঘোড়ায় চড়ে। ঘোড়ায় চড়ে আসার অর্থ হল ছত্রভঙ্গ শাস্ত্রবিদরা বলেন ঘোড়ায় চড়ে দেবীর আগমন খুব একটা দুর্গযোগের আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। ৫ অক্টোবর মহাসপ্তমী শনিবার সকাবেলায় নিকটবর্তী জলাশয় থেকে কলাবউ আনায় সেই শুভদিন। মহাষষ্ঠী পড়েছে রবিবার ৬ অক্টোবর , ৭ অক্টোবর সোমবার মহানবমী এবং মঙ্গলবার ৮ অক্টোবর বিজয়া দশমী। বিজয়া দশমীর দিন মা দুর্গার কৈলাসে প্রত্যাবর্তন ও রয়েছে ঘোড়ায় চড়ে। অর্থাৎ এই বছর দেবী আগমন এবং প্রত্যাবর্তন দুয়ের থেকেই বাহন ঘোড়া। আর এই পূজাকে ঘিরে বীরগঞ্জ উপজেলা জুড়ে চলছে প্রতিমা সাজানোর শেষ কাজ। দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় ১৫৭ টি মন্দিরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন বীরগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মহেশ চন্দ্র রায়। ও সাধারণ সম্পাদক গোপাল দেব শর্মা জানান, গতবারের ১৫৫ থেকে এবছর একটি শিবরামপুর ও পাল্টাপুর ইউনিয়নে ২টি দুর্গাম-প বেড়ে ১৫৭ টিতে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। উপজেলার ১২ টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিমা শিল্পীদের নিপুন আঁচড়ে তৈরি হচ্ছে এক একটি প্রতিমা। প্রতিমার আকার ও শৈল্পিক গঠন অনুযায়ী প্রতিমা শিল্পীরা ১০ হাজার থেকে দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত পারিশ্রমিক নিচ্ছেন শিল্পীরা। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বীরগঞ্জ সার্কেল) মোঃ আব্দুল ওয়ারেস বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তার সকল প্রস্তুতি চলছে। উপজেলার কিছু পূজাম-প ঝুঁকিপূর্ণ চিহ্নিত করা হচ্ছে। বীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ সাকিলা পারভিন বীরগঞ্জবাসী সবাইকে অগ্রিম শারর্দীয় শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, আসন্ন দুর্গাপূজা সুষ্ঠু সুন্দরভাবে উদযাপন করতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সুন্দর ও সুশৃঙ্খল রাখতে কেউ যেনো দুর্গাপূজায়, প্রতিমাকে কেন্দ্র করে কোন বেআইনী কর্মকান্ড না ঘটায় সেদিকে সর্বদা লক্ষ্য রাখতে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাকে সাহায্য করতে আহ্বান জানান।