সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বোচাগঞ্জে মাল্টা চাষের ব্যাপক সম্ভাবনা

মোঃ শামসুল আলম, বোচাগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি॥ বোচাগঞ্জ উপজেলায় মাল্টা চাষের ব্যাপক সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। আগামী দুই থেকে তিন বছরের মধ্যে উৎপাদিত মাল্টা বোচাগঞ্জ বাসীর চাহিদা পূরণে উল্লেখ যোগ্য ভূমিকা রাখবে এমনটাই ধারনা করছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। এ বিষয়ে উপজেলার ২নং-ইশানিয়া ইউনিয়নের মাল্টা চাষী মোঃ আজাহারুল ইসলাম বলেন, আমি গত দুই বছর পূর্বে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জসিম উদ্দীনের পরামর্শে ২০শতক জমিতে বারি-১ জাতের ৬০টি মাল্টার গাছ রোপন করে তার পরামর্শ অনুযায়ী গাছের পরিচর্চা করি গত বছর ৩/৪টি গাছে ফল ধরেছিল তবে এবছর প্রায় ৩০টি গাছে ১ হাজারের চেয়েও বেশী ফল ধরেছে। আমি আগামীতে ৬০ শতাংশ জমিতে মাল্টা চাষ করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। ১নং-নাফানগর ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামের কৃষক মোঃ সৈয়দ আলী  জানান, আমিও গত দুই বছর পূর্বে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জাহেরুল ইসলামের পরামর্শে ২০শতক জমিতে ৬০টি মাল্টার গাছ রোপন করে তার পরামর্শ অনুযায়ী গাছের পরিচর্চা করি গত বছর ৩/৪টি গাছে ফল ধরেছিল কিন্তু এবছর প্রায় ৪০টি গাছে ফল ধরেছে। ফলের পরিমাণ কম করে হলেও ১হাজার ৫শ হবে। আমি আগামীতে ১একর জমিতে মাল্টা চাষ করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। এছাড়াও অনেক কৃষক আমার বাগান থেকে গাছের ডাল নিয়ে নতুন করে মাল্টা চাষ শুরু করেছে। এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ বাসুদেব রায় জানান, একজন মানুষের প্রতিদিন ২শ গ্রাম ফল খাওয়া প্রয়োজন। ফলের চাহিদা পূরণে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের বিভিন্ন পদক্ষেপের অংশ হিসেবে গত দুই বছর পূর্বে রাজস্ব খাতের আওতায় উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে প্রথম মাল্টা চাষ শুরু করা হয়। বর্তমানে বোচাগঞ্জ উপজেলায় মাল্টা চাষ সম্প্রসারিত হচ্ছে। আশা করছি আগামী ২/৩ বছরের মধ্যে উৎপাদিত মাল্টা বোচাগঞ্জ বাসীর চাহিদা পূরণে উল্লেখ যোগ্য ভুমিকা রাখবে। উল্লেখ্য যে, মাল্টায় আসে ভিটামিন বি, ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ফসফরাস, চর্বিমুক্ত ক্যালরি, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এবং ক্ষতিকারক জীবানুর বিরুদ্ধে লড়াই করারমত অসাধারণ ক্ষমতা। বর্তমানে পরিবারের শিশুসহ সকলের কাছে মাল্টা একটি জনপ্রিয় ফল।