বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯ ৬ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য কর্মপরিকল্পনা-কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কথা মাথায় রেখে কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করতে হবে।

মঙ্গলবার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মাসিক এডিপি সভায় তিনি এসব কথা বলেন। মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পরে এটাই তার প্রথম সভা।

তিনি বলেন, সরাসরি কৃষির সঙ্গে সম্পৃক্ত নয় এমন কোনো প্রকল্প যেন গ্রহণ করা না হয়। বিশেষ করে পটুয়াখালী জেলায় মোট জাতীয় উৎপাদনে তেলের ক্ষেত্রে আমদানি নির্ভরতা কমিয়ে আনাতে দেশব্যাপী বৃহৎ প্রকল্প গ্রহণ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, বছরব্যাপী ফল উৎপাদনের মাধ্যমে পুষ্টি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ৪শ কেজি কেসুনাট বীজ আমদানির জন্য ভিয়েতনাম ,থাইল্যান্ড ও ভারত থেকে ভালো বীজ সংগ্রহের করা হবে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, এছাড়া প্রকল্প গ্রহণের ফলে কি কি পরিবর্তন এসেছে এবং উৎপাদনের তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরতে হবে। যে কারণে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে তা কতটুকু পূরণ হয়েছে এবং আরও কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত তা উল্লেখ করতে হবে।

উল্লেখ্য, কৃষি মন্ত্রণালয়ের ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৭২টি প্রকল্পে ১ হাজার ৮শ ১২৬ দশমিক ৮৯ কোটি টাকা বরাদ্দের বিপরীতে ১ হাজার ৩শ ৫৭ দশমিক ৫১ কোটি টাকা অবমুক্ত করা হয়েছে। বৃহৎ বরাদ্দ প্রাপ্ত ৩৩টি প্রকল্পের অনুকূলে মোট ১ হাজার ৪শ ৫০ দশমিক ২ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়, এপ্রিল/২০১৯ পর্যন্ত মোট ব্যয় হয়েছে ৯শ ৬ দশমিক ৫২ কোটি টাকা। এপ্রিল/২০১৯ পর্যন্ত প্রকল্পের মোট জাতীয় গড় অগ্রগতি ৫৫ শতাংশ। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে প্রকল্প বাস্তবায়নের তাগিদ দেন।

কৃষি সচিব মো. নাসিরুজ্জামান সভার সঞ্চালনা করেন। সভায় মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালকরা এবং মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।