রবিবার ১ নভেম্বর ২০২০ ১৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনে আজারবাইজান আর্মেনিয়ার পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

যুদ্ধবিরতি প্রতিষ্ঠার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই তা লঙ্ঘনের জন্য আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়া পরস্পরকে দায়ী করেছে। একই সঙ্গে তারা যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের জন্য পাল্টা প্রতিশোধ নেয়ার হুমকি দিয়েছে।

গত দুই সপ্তাহ ধরে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে মারাত্মক রকমের সামরিক সংঘাতের পর রাশিয়ার মধ্যস্থতায় শুক্রবার রাতে দু পক্ষ শান্তি আলোচনায় বসে এবং শনিবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা থেকে যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়। সংঘর্ষে ৩০০’র বেশি মানুষ নিহত এবং বহু মানুষ আহত হয়েছেন। যুদ্ধ কবলিত অঞ্চল থেকে লাশ উদ্ধার এবং বন্দী বিনিময় করার লক্ষ্য নিয়ে মূলত এই যুদ্ধবিরতি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তবে যুদ্ধবিরতি কতক্ষণ পর্যন্ত স্থায়ী হবে সে সম্পর্কে কোনো তথ্য জানা যায়নি।

ভূমিবেষ্টিত দক্ষিণ ককেশাসের এই অঞ্চলে মানবিক ত্রাণ তৎপরতায় আন্তর্জাতিক রেডক্রস কমিটি সহযোগিতা দিচ্ছে। এ খবর জানিয়েছে তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সি।

শনিবার দুপুরের দিক থেকে যুদ্ধবিরতি কার্যকর হলেও দিনের শেষ দিকে আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বেশ কয়েকটি জন-অধ্যুষিত এলাকা আর্মিনিয়া সেনাদের হামলার কবলে পড়েছে।

আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, যুদ্ধবিরতি চুক্তি সত্বেও আর্মেনিয়ার সেনারা কয়েকটি এলাকায় হামলার চেষ্টা চালিয়েছে এবং আজারবাইজানের বেশ কয়েকটি বসতি লক্ষ্য করে তারা গোলাবর্ষণ করে। তবে এসব হামলা সফলতার সঙ্গে প্রতিহত করা হয়েছে বলে আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় দাবি করেছে। হামলা প্রতিহত করতে আজারবাইজানের সেনারা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে।

অন্যদিকে, আর্মেনিয়ায় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র শুশান স্তেপানিয়া বলেছেন, আজারবাইজানের সেনারা আর্মেনিয়ার কারাখামবেইলি এলাকায় হামলা চালিয়েছে। তিনিও দাবি করেন- শত্রুদের হামলা প্রতিহত করার জন্য আর্মেনিয়ার সেনারা যথাযথ পদক্ষেপ নিয়েছিল।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email